ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

দৈনিক জনকন্ঠ পত্রিকার এক প্রতিবেদন অনুযায়ী, ০৩ মার্চ, রবিবার জামায়াত-শিবিরের ডাকা হরতালের প্রথম দিনে সারাদেশের বিভিন্ন স্থানে হামলা, সংঘর্ষ ও গুলিতে অন্তত ২১ জন নিহত এবং আড়াই শতাধিক আহত হয়েছে। মন্দিরে লুটপাট এবং পুলিশ ফাঁড়িতে হামলা হয়েছে।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম এর প্রতিবেদন অনুযায়ী,০৩ মার্চ ২০১৩, পাবনার বেড়ায় একটি কালীমূর্তি ভাঙচুর করে তাতে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। রোববার সকালে উপজেলার দাঁথিয়া মহাশ্মশান ঘাটে এ ঘটনা ঘটে।

এদিকে লাগাতার হরতালে বিপাকে পড়েছে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার শিক্ষার্তীরা। দেশের সার্বিক অর্থনীতি একরকম ভঙ্গুর অবস্থার মধ্যে পড়েছে। এইরকম ধ্বংসের রাজনীতি কি আমাদের কাম্য?

জামায়াত-শিবির হরতাল এর নামে হরতালের আগের দিন ও হরতালের দিন যেভাবে তাদের সর্বচ্চো কুৎসিত চেহারাটি সারা বিশ্বের কাছে তুলে ধরল। এতে কী এখনো বলা যায় না যে, এরা দেশকে ক্ষতি করতে মাঠে নেমেছে। যে মানবতাবিরোধীরা ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধে রাজাকার বেশে নারকীয়তা চালিয়েছে তাদের বাঁচাতে এই জামায়াত-শিবির ও তাদের দোসররা দেশে একটি অস্থিতিশীল পরিস্থিতি চালাচ্ছে।

অপেক্ষায় রইলাম এইরকম একটি দলকে নিষিদ্ধ করার দিনটির জন্য।