ক্যাটেগরিঃ মানবাধিকার

ফেমিনিজম টার্মটি অনেকের অনেক দ্বিধা, অনেকে ঠিকঠাক ভাবে জানেন না ফেমিনিজম আসলে কী । আমি অনেক সময় অনেককে প্রশ্ন করেছিলাম, আচ্ছা , ফেমিনিজম মানে কী? তারা ঠিকঠাক ভাবে উত্তর দিতে পারেননি ।
আমি ফেমিনিজম নিয়ে যত টুকু জানতে পেরেছি তা হল, ফেমিনিজম হল একটা দর্শন যা নারীর জন্য সব ক্ষেত্রে পুরুষের সমান অধিকার ও স্বাধীনতাকে সমর্থন করে । এর মূল লক্ষ্য হচ্ছে জেন্ডার ডিস্ক্রিমিনেশন উচ্ছেদ করা অর্থাৎ নারী পুরুষের মধ্যে সাম্যবস্থা নিয়ে আসা । এটা হচ্ছে ফেমিনিজম এর মূল কথা ।
একটা প্রশ্ন ফেমিনিজম নিয়ে প্রায় উঠে আসে । তা হল , ফেমিনিজম যদি নারী পুরুষের মধ্যে সাম্যতা নিয়ে আসার জন্যই হয় তাহলে কেন এটার নাম ফেমিনিজম, কেন এটার নাম হিউমিনিসম বা ইক্যুলিজম না । এর একটা যুক্তিযুক্ত উত্তর হল যুগ যুগ ধরে নারী সবচেয়ে বেশি অবহেলিত এবং সুবিধা বঞ্চিত , নিগৃহীত । তাই নারী পুরুষের সমতা অর্জন করতে শুরু করা উচিত নারীকে রক্ষা করার মধ্য দিয়ে ।
যুগ যুগ ধরে নারীকে দুর্বল করে রেখেছে পুরুষের আধিপত্য, গোঁড়ামি আর তাদের শারীরিক শক্তির প্রদরশনতা । আমাদের কলেজে আমাদের বাংলা শিক্ষক একটা কথা বলেছেন যে , পুরুষ যখন নারীকে প্রহার করে তখন তাদের মনোভাব থাকে এরকম যে , আমার শক্তি আছে তাই আমি যা খুশি করব । সমাজের একটা প্রচলিত নিয়ম হয়ে গেছে যে মেয়েদের লাজুক হতে হবে , তাদের কণ্ঠস্বর নিচে নামিয়ে কথা বলতে হবে , তাদের একদম মেয়েলি আচরন করতে হবে এবং কোন মানুষের মত আচরন করা যাবে না । কোন প্রতিবাদ করা তার মানায় না ইত্যাদি ইত্যাদি । নারীও এই নিয়ম গুল মানতে বাধ্য হচ্ছে । নারীকে প্রতিবাদী , সাহসি, সচেতন আর আত্মবিশ্বাসী করে তোলার এবং আত্মনির্ভরশীল করে তোলার জন্যই এই ফেমিনিজম ।

মানছি যে নারীর আজকের অবস্থান এক দশক আগের অবস্থান থেকে ভিন্ন কিন্তু বর্তমানে যৌন নির্যাতন এর হার ভয়াবহ হারে বেড়ে গেছে । এর জবাব কে দেবে? যেসব পুরুষ ফেমিনিজম কে ফালতু বলে , আপনারা পারবেন কি এর জবাব দিতে ? সাহস আছে কি? জবাব না দিতে পারলে আপনারা কেন নারীদেরকে নারীদের মত থাকতে দেন না ? নারীরা কি আপনাদের কোন কাজে বাধা দেয় ? তা ত নয় ! তাহলে কিসের প্রতিহিংসায় পুরুষ নারীকে প্রতিনিয়ত বিভিন্ন কাজে বাধা প্রদান করছে? সবাই বলে, নারীদের শিক্ষিত হয়ে নিজের পায়ে দাঁড়ান ছাড়া উপায় নেই । কিন্তু শিক্ষিত , যোগ্য মেয়েরাও তো নির্যাতন এর শিকার হয় ! তার বেলা ? পত্রিকায় যেসব খবর ছাপা হয় সেসব ছাড়াও আরও অনেক ঘটনা ঘটে প্রতিনিয়ত ।
আমি বলি না, সব পুরুষ ধর্ষক, প্রতারক। কিন্তু ” অন্যায় যে করে এবং অন্যায় যে সহে , তব ঘৃণা তারে যেন তৃণ সমদহে” । তবে অনেক পুরুষের অভিযোগ শুনি যে , ফেমিনিজম পুরুষ বিরোধী , আমি জানিনা কেন তারা এটা বলে । মনে হয় তারা নিজের অজান্তেই ভয় পেতে শুরু করে । কিন্তু আমি এটা মানি যে কোন কিছুই বেশি বেশি ভাল না এবং ফেমিনিজম এর দোহাই নিরপরাধ কোন ছেলেকে অপমান করাও উচিত নয় । তবে বর্তমানে খারাপ লোকের সংখ্যা এত বেশি যে কাউকেই বিশ্বাস করা যায় না ।

তবে আরেকটা কথা বলে নেওয়া ভাল যে , সব ফেমিনিস্ট যে জেন্ডার ইক্যুলিজম এর জন্য কাজ করে তা না । অনেকে ব্যাপার টা এভাবে ন নেয় যে পুরুষের আধিপত্য উচ্ছেদ করে নারীর আধিপত্য ঘটাতে হবে । তা মোটেই নয় । বরং উভয় লিঙ্গের সমতা ঘটান এর লক্ষ্য ।