ক্যাটেগরিঃ স্বাধিকার চেতনা

এই আন্দোলন স্বতঃস্ফূর্ত। এই দাবী প্রাণের দাবী। যারা বলছেন এটা সরকারের কৌশল তারা নির্জলা মিথ্যে বলছেন। শুধু তাই নয়, সাধারণ মানুষের এই মহতী উদ্যোগকে তারা প্রশ্নবিদ্ধ করার হীন ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছেন। আমরা তাদেরকে তীব্র নিন্দা জানাই। আমাদের তীব্র ঘৃণা তাদের জন্যে। আমি কোন রাজনৈতিক দলের সদস্য নই। আমরা কোন রাজনৈতিক দলের সদস্য নই। আমাদেরকে ধারন করার মত যোগ্য দল এই মুহূর্তে এ দেশে একটিও নেই। আমরা ব্লগাররা দেশকে ভালবাসি। আমরা দেশবিরোধী সকল শক্তির বিরোধী। দেশের পক্ষশক্তির পক্ষভূক্ত। এই তরুন দল নির্মোহ। এই তারুণ্য দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ। এরা নির্ভয়। এরা অকপট। অমূল্য এরা, এদেরকে কেনা যায় না। এরা সত্যের পক্ষভুক্ত। এরা জানেনা ভন্ডামি।

প্রথম এই আন্দোলনের ডাক দেয়া, প্রথম থেকে শাহবাগে অবস্থান নেয়া এই তরুন প্রজন্মই প্রথম কাদের মোল্লার রায়ের বিরুদ্ধে নিজেদের অবস্থানকে স্পষ্ট করেছে। এই রায়ের বিরুদ্ধে সরব হয়েছে । তারা কোন দলের এজেন্ডা বাস্তবায়ন করছে না। তারা একাত্তরের পূর্বসূরিদের এজেন্ডা বাস্তবায়নেই রাস্তায় নেমেছে।

আমরা এ দেশের নীতিহিন রাজনীতিবিদদের উত্তরসূরি নই। আমরা তাদের উত্তরসূরি, যারা ব্যক্তিগত প্রত্যাশায় নয়। শুধুমাত্র এ দেশকে ভালবেসে ত্যাগ করছিল সবকিছু। সেই মহান মুক্তিযোদ্ধাদের উত্তরসূরি আমরা; আজ বিচার চাই সকল যুদ্ধাপরাধীর। বিচার চাই তাদেরও, আজো যারা এদের পক্ষাবলম্বন করছে।

আজ যারা এই আন্দোলনে একাত্মতা ঘোষণা করে আন্দোলনের সাথে সম্পৃক্ত হচ্ছেন তাদের প্রতি আমাদের সনির্বন্ধ অনূরোধ। আপনারা এখানে কোন দলীয় ব্যানার নিয়ে আসবেন না। কোন দলীয় বক্তব্য প্রদান করবেন না। এই আন্দোলন এ দেশের ষোল কোটি মানুষের আন্দোলন। এখানে কোন দল নেই, মত নেই। আমাদের একটাই পরিচিতি, বাংলাদেশী। একটাই দাবী, যুদ্ধাপরাধে অভিযুক্ত প্রত্যেকের সুষ্ঠ বিচার করতে হবে। সর্বোচ্চ শাস্তি (ফাঁসি) প্রদান করতে হবে। এখানে কোন আপোষ চলবে না।

যুদ্ধাপরাধে অভিযুক্তদের একটাই পরিচিতি, তারা যুদ্ধাপরাধী। তারা মানবতা বিরোধী। তাদের কৃতকর্মের ফল তাদেরই ভোগ কোরতে হবে। আর তা এই বাংলার মাটিতেই। এর অন্যথা আমরা মেনে নেব না।

kmgmehadi@yahoo.com

মন্তব্য ১ পঠিত