ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

 

এতবছর পরে রোহিঙ্গা সমস্যা যখন বিশ্ববাসীর নজরে এসেছে।  যখন বিশ্ব নেতৃবৃন্দও এই সমস্যার সমাধানের তাগিদ দিতে শুরু করেছে ঠিক তখনই মিয়ানমার বিজিবির নায়েক রাজ্জাককে নিয়ে যে নাটক শুরু করেছে তা রোহিঙ্গা সমস্যা থেকে দৃষ্টি সরানোর চেষ্টা বলেই মনে হচ্ছে। এই কাজটি করতে গিয়ে তারা যে ধৃষ্টতা দেখিয়েছে তার উত্তরে এখন পর্যন্ত বাংলাদেশ চরম সহিষ্ণুতা দেখিয়েছে। এই উদার ভদ্র আচরণকে মিয়ানমার জাতি বাংলাদেশের দুর্বলতা বলে ধরে নিচ্ছে। যা তাদের আচরনে স্পষ্ট।
তারপরেও যদি বাংলাদেশ সরকার একান্তই ভদ্রতার চৌকাঠ না পেরুতে চায় তাহলে যেন অন্তত অনতিবিলম্বে মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূতকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বারান্দায় ডেকে এনে সেই পর্যন্ত বসিয়ে রাখা হয় যতক্ষণ না মায়ানমার বিজিবির নায়েক রাজ্জাককে সসম্মানে ফিরিয়ে দেয়।
এ ক্ষেত্রে অতিমাত্রায় ভদ্রতা দেখানো মানে যে নিজেকেই নিরাপত্তাহিন করে তোলা বাংলাদেশ সরকার কি এখনও এটা উপলব্ধি করতে পারছে না?

kmgmehadi@gmail.com