ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

 

আপনি ঢাকার রাস্তায় বেড়িয়ে রিকশায় উঠবেন, দেখবেন রিকসা ওয়ালা ঐ স্ট্যান্ডে পৌঁছালে পরে একজন এসে পাশে দাঁড়াচ্ছে। কিছু বলছে বা বলছে না রিকসা ওয়ালা তার হাতে দুই থেকে পাঁচ টাকা তুলে দিচ্ছে। আপনি একটি লেগুনায় উঠলেই দেখবেন চালক অথবা হেলপার একাধিক স্থানে এভাবেই টাকা দিচ্ছেন যদিও অঙ্কটা অনেক  বেশী।আপনি একটি লোকাল বাসে উঠবেন দেখবেন পোশাকি অপোশাকির সেই হাত। যথারীতি টাকা প্রদান। এমনকি একজন ভ্যান ড্রাইভারও আপনাকে বলে দিবে কোন রাস্তা পাড় হতে কত টাকা লাগে। একই ভাবে ফুটপাতের অবৈধ দোকানি সহ যে কোন ব্যবসায়ীর সাথে কথা বললেই বুঝবেন নীরব চাঁদাবাজি কাকে বলে।

 

Pulisher chadabaji

 

এটা যে নতুন কোন বিষয় তা নয়। স্মরণ কালের ইতিহাসে এর ব্যতিক্রম দেখা যায়নি। তবে প্রতিনিয়তই এর আকার বেড়েছে। এই টাকা গুলো কারা নেন কেন নেন কিভাবে নেন এটা জানে না এমন কেউ আছেন বলেও মনে হয় না।
অথচ প্রতিকার হীন ভাবে দিনের পর দিন এভাবেই চলে আসছে। একটা কথা প্রচলিত আছে কচু গাছ কাটতে কাটতে মানুষ ডাকাত হয়। আমরা কি এখন সেটাই প্রত্যক্ষ করছি?