ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

ইলিয়াস আলীর ঘটনায় সরকার বিব্রত।কথাটা মাননীয় সরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর। যাক বোঝা গেল আমাদের সরকার যন্ত্র অন্তত বিব্রত হন।কথা হচ্ছে আর কত? গত ৩ এপ্রিল নিখোজ হন সিলেট জেলা ছাত্রদল নেতা ইফতেখার আহমেদ দিনার ও জুনেদ আহমেদ। আজ অবধী খোজ নেই। সরকার বিব্রত বোধ করেননি। কেন করেননি তারা ছোট নেতা বলে? হতে পারে। ছোট ঘটনা কখনো কখনো বড় কিছুরই পূর্বাভাষ দেয়। দু ধরনের লোক তা বুঝতে পারে। এক যারা সচেতন। দুই, যারা সত্যিই এ ধরনের ঘটনার হাত থেকে রেহাই পেতে চান। আমাদের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্তাব্যক্তিরা এই দুইটির কোনটার কি দলভুক্ত?
ছোট ঘটনা একদিকে যেমন বড় কিছুর পূর্বাভাষ দেয় তেমনি তাকে গুরুত্ব না দিলে বড় ধরনের অঘটন ঘটতে বা ঘটাতে উৎসাহ প্রদান করে।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, আপনি সব ব্যাপারেই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করেন কিন্তু বড় বেশী দেরি হয়ে যাচ্ছে। আমরা সাধারণ জনগন সবই সহ্য করি। আকুল আগ্রহে অপেক্ষা করি পরিবর্তনের, পরিবর্তন হচ্ছে ঠিকই তবে তা ভাল নয়। আপনি ভাল বুঝবেন কে কেন পারছে না। কে পারবে। দয়া করে একবার ভাবুন। আমরা আপনার দিকেই তাকিয়ে আছি।

গুম এর রাজনীতি কে শুরু করেছে এটা আমরা শুনতে চাই না। আমরা নিরাপত্তা চাই।