ক্যাটেগরিঃ নাগরিক আলাপ

গত শুক্রবার ছুটির দিন । অবসরের সময়টা আনন্দময় করতে বেশীরভাগ প্রবাসীরা একে অন্যের বাসায় আড্ডা দিতে যাই । এখানে দল মত নির্বিশেষে আড্ডা হয় । ভালো খাবার দাবারের আয়োজন হয় । সেই সময়টুকুতে মনে হয় দেশে আছি । দেশের মাটির কোন চায়ের দোকান কিংবা খেলার মাঠে বসে অনাবিল আড্ডা দিচ্ছি । আর দেশকে কাছে পাবার জন্য ব্যাকুল হয়ে থাকে সকলের মন । সবাই যদি হাসি আনন্দে ব্যাস্ত কিন্তু আসলে সকলেই একা , মনের মাঝে একাকিত্তের যন্ত্রনা চেপে রাখে সবাই সকলের অগোচরে । প্রিয়তমা নববধুকে ছেঁড়ে আসা নজরুল যেমন গোপনে কাঁদে , তেমনি প্রেমিকার বিরহে সোলেইমানও কাঁদে নীরবে, ষাটোর্ধ্ব মোস্তাফিজ ভাই কাঁদে তার বৃদ্ধ মায়ের জন্য । এমন করে হাসি আনন্দ বেদনার মাঝেই সকলের দিন যায়।

দেশের সাম্প্রতিক পরিস্থিতি নিয়ে আওয়ামী সমর্থক এবং বিএনপি সমর্থকরা কথা কাটাকাটি করছিল । আমি দূরে বসে গেরিলা ছবি দেখছিলাম টিভিতে । কিন্তু ধীরে ধীরে তাদের কথাবার্তা আলোচনা পেরিয়ে অন্য দিকে রূপ নিতে থাকে । ছবির প্রতি মনযোগ থাকায় আমি ততটা খেয়াল করিনি প্রথমে ।কিন্তু একজন বলে উঠল, ‘তুই ভারতের দালাল’, জবাবে অন্যজন বলে উঠল, ‘তুই পাকিস্তানের দালাল’! এবাবে একে অন্যকে গালাগালি দিতে লাগল । আমি ধীরে ধীরে উঠে গেলাম । তাদেরকে শান্ত করার চেষ্টা করলাম এবং তারা আমার মধ্যস্ততায় শান্ত হল । এরপর খাবার দাবার হল । সবাই আবার হাসি মুখে কথা বলছে দেখে আমি বলে উঠলাম,‘ তোমরা যদি কিছু মনে না কর তাহলে আমি কিছু বলতে চাই’। সকলে বলে উঠল বলেন ভাই । আমি বললাম আজ তোমাদের ঝগড়া দেখে আমি মনে কষ্ট পেয়েছি কিন্তু একটি শিক্ষা ও হয়েছে । সকলে বলল – কী শিক্ষা ? আমি বললাম –তোমাদের অনেককে আজ ভারতের দালাল , পাকিস্তানের দালাল বলতে শুনেছি , অথচ কাউকে আজ বাংলাদেশের দালাল বলতে শুনিনি । এটা অত্যন্ত লজ্জার । আজ দেশ স্বাধীন হয়েছে চল্লিশ বছর পার হয়ে গেল কিন্তু আমরা কেউ আজ ও দেশের দালাল হতে পারিনি । আমরা ভারতের দালাল হয়েছি কিংবা পাকিস্তানের দালাল হয়েছি কিন্তু নিজের দেশের জন্য দালাল হতে পারিনি । আর সেই কারনে আজো আমরা আমাদের সঠিক লক্ষ্যে পৌঁছুতে পারিনি ।

আমার কথা শুনে সকলে চুপ হয়ে গেল । আমি বললাম আজ উঠি বন্ধুরা , তোমাদের এখানে হয়ত আর কোন দিন আসব না । কেউ রাগ নিও না । সেই সময় বৃদ্ধ মোস্তাফিজ ভাই জড়িয়ে ধরে বললেন তুমি না এলে আমি খুব কষ্ট পাব । প্রসঙ্গত মোস্তাফিজ ভাই একজন মুক্তিযোদ্ধা । সবাই আমাকে জড়িয়ে ধরল । সাথে সাথে ভুলে গেলাম সকল অভিমান । আর ভাবতে লাগলাম , আসলেই কি আমরা দেশের জন্য কিছু করেছি কিংবা করতে পারছি?