ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

 

যে আপনি একটু আগে শেয়ার করলেন ফারাজ হিরো, সেই আপনি ঘণ্টাখানেক পরেই শেয়ার করলেন ফারাজ জঙ্গী। আপনাদের বিবেচনাবোধ এত কম কেন রে? এত চপল কেন আপনারা? এত দ্রুত হিরো বানাতে গেলেন কেন তাহলে?

আচ্ছা, প্রথম আলো যেভাবে তাকে হিরো বানাচ্ছে সেটা তো সত্যি হওয়া কঠিন, কারণ, কোনো এভিডেন্স আসলে নেই, আবার সত্য হতে পারে না, তাও নয়। কিন্তু পজেটিভ বলে সে নিউজ শেয়ার করায় আমার আপত্তি নেই, যদিও ব্যক্তিগকভাবে আমি সন্দেহজনক তথ্য শেয়ার করতে রাজি নই।তত্ত্বে সন্দেহ চলে, তথ্যে একেবারেই না।

“ফারাজ জঙ্গী” এতবড় নেগেটিভ একটা খবর কোনোভাবেই শেয়ার করা চলে না। কিছু সহজ জিনিস বুঝতে এত কষ্ট হবে কেন? সরকার যতই বলুক আইএস নেই, কিন্তু এটা তো প্রমাণিত হয়েছে যে তারা (হামলাকারীরা) আইএস এর সাথে কানেকটেড। সেক্ষেত্রে আইসের সাইটের তথ্যই সবচে’ নির্ভরযোগ্য তথ্য। সে হিসেবে পাঁচজনের বাইরে কাউকে নিশ্চিতভাবে জঙ্গী বলার সুযোগ এই মুহূর্তে নেই। সরকার যতই বলুক যে একজনকে জীবিত ধরা হয়েছে, আসলে তা বিশ্বাস করা কঠিন বলে সবাই বিশ্বাস করছে না।

স্বাভাবিকভাবেই অনেক কিছু মনে আসে। কিন্তু চট করে তা বলে ফেলা যায় না। অনেকে উদ্দেশ্য নিয়ে বলছে, কিন্তু আপনি আমি না বুঝে তা প্রচার করছি কেন? আপনাদের এতদ্রুত বদলাতে দেখে খুবই আতঙ্কিত বোধ করি যে! একটা কিছুই দেখেই, গজিয়ে ওঠা কোনো মিডিয়ার একটি নিউজ দেখে মত পাল্টে ফেললেন মুহূর্তে? তাছাড়া এটা যে কাউন্টার ন্যারেটিভ, তা বুঝতেই বা এত কষ্ট হবে কেন? যে যুক্তিতে হাসনাতকে জেহাদীদের সাথে যুক্ত বলা হচ্ছে, তার পাল্টা যুক্তি হিসেবেই ‘ওরা’ এটি হাজির করেছে।

আর এটিও তো জানা থাকা দরকার যে ভিডিওতেও চোরামতি চলে, এডিট করা যায়, কারো হাতে আবছা বন্দুক ধরিয়ে দেওয়া যায়। কাউকে দাঁড় করিয়ে দেওয়া যায়। অনেক কিছু করা যায়।