ক্যাটেগরিঃ ব্লগালোচনা

‘মেহদী হাসান খান’ কে নূতন করে পরিচয় করিয়ে দিয়ে আমি নিজকে আপনাদের দরবারে বোকা সাজাতে চাই না। বাংলা ভাষাভাষী এবং যারা কম্পিউটারে অনলাইনে বাংলা লিখে থাকেন তাদের মাঝে আমাদের মেহদী হাসান খান তার ‘অভ্র’ নিয়ে প্রতিদিন আমাদের মাঝে হাজির হন। কম্পিউটারে এফ১২ কী চেপে অনলাইনে বাংলা লিখতে যেয়ে প্রতিদিন অভ্র তথা মেহদী হাসান খানের কথা মনে পড়ে। তিনি আমাদের জন্য বাংলা টাইপ কতই সহজ করে দিয়েছেন! এবং তা সম্পূর্ন ফ্রি’তে! কি আশ্চর্য মানুষ আমাদের মেহদী হাসান খান! প্রতি কপির জন্য দশ টাকা নিলেই তিনি হয়ত আমাদের দেশের ধনীদের কাতারে চলে যেতে পারতেন!

ব্যক্তিগত ভাবে আমি আমার উদাহরন দেই, ১৯৮৬ সাল (আইবিএ’তে প্রথম কম্পিউটার শিখি) থেকে কম্পিউটার জানা স্বত্বেও আমি বাংলা লিখতে পারতাম না (অবশ্য এখনো আমার কাজের ক্ষেতে বাংলা লাগে না)। আরামবাগের বিশেষ সফটওয়্যার ও কি বোর্ডের কথা মনে পড়লেই গা ঝালা দিয়ে যেত। বিদেশে থাকাবস্থায় অনেক চেষ্টা করেও সে বিলাসী কি বোর্ড মুখস্ত করতে পারি নাই। অথচ এখন কত সহজেই না বাংলা লিখছি। বাংলা আমাদের মায়ের ভাষা, প্রানের ভাষা। ইতালিতে আমি এখন আমার মায়ের কাছে বাংলায় ইমেইল করি, এর চেয়ে আমার আনন্দের কি হতে পারে। আমি এখন কম্পিউটারে আমার মা কে ‘মা’ বলতে পারি। আমার মা বাংলায় ‘মা’ ডাক শুনে এবং কম্পিউটারে বাংলা দেখে অবাক হন। যে কথা আগে ইংরেজীতে এক প্যারা লিখে বুঝাতে হত, এখন তা এক বাক্যেই হয়ে যাচ্ছে। বাংলা শিখে গত একবছরে নানা বাংলা ব্লগে প্রায় আড়াইশ ব্লগ/পোষ্ট লিখে ফেলেছি – এর চেয়ে আর চমৎকার কি হতে পারে!

এই নির্লোভ মানুষটি আমাদের মেহদী হাসান খান আজ ‘দি ববস’ এর Best Use of Technology for Social Good আজ নির্বাচিত হয়েছেন। বেষ্ট ইউজ ফর টেকনোলজি বিভাগে তার কৃতিত্ব আজ সারা বিশ্ব স্বীকৃতি পেতে যাচ্ছে। বিশ্বের নির্বাচিত দশটি সেরা ব্লগের মাঝে আজ তার স্থান। আশাকরি এ বিষয়ে আপনারা আমার চেয়ে বেশী জানেন। এখন আমাদের দ্বায়িত্ব, আমাদের মেহদী হাসান খানকে সেরা নির্বাচিত করে দেয়া – ভোটের মাধ্যমে। আমি মনে করি এটাই আমাদের সেরা সময় মেহদী হাসান খানের জন্য আমাদের কিছু করা, তার ঋণ (ভাল অর্থে বলছি) পরিশোধ করা। অনলাইনে থেকে প্রতি ২৪ ঘন্টা অন্তর অন্তর এই ভোট দেয়া আমাদের জন্য তেমন কোন ব্যাপারই নয় – শুধু ইচ্ছা শক্তির দরকার। একটু উদার হৃদয়ে ভেবে দেখবেন আশা করি। এতে শুধু আমাদের ভাই, বন্ধু মেহদী হাসান খান নয়, বাংলাদেশ তথা বাংলা ভাষাও সমুন্নত হবে। বাংলা বিশ্বের দরবারে আরো একধাপ এগিয়ে যাবে। আসুন এবং এখুনি ভোট দিন। এসময় হয়ত আর আমরা ফিরে পেতে নাও পারি। মেহদী হাসান খানকে আমাদের জয়যুক্ত করতেই হবে।

অনেক কথা লিখে ব্লগের পাতা বাড়িয়ে লাভ নেই। আসুন সচিত্র দেখে নেই কি করে এই ভোট দেয়া যায়। চিত্র গুলো দেখলেই আশাকরি কত সহজে ভোট দেয়া যায় তা জেনে যাবেন। মেহদী হাসান খানের জন্য শুভ কামনা সব সময়। আপনাদের জন্যও ভালবাসা, ভাল থাকুন আজীবন।

চিত্র ১ – দি ববস এর ভোটাভুটির মেইন পেইজে যেতে এখানে ক্লিক করুন।

চিত্র ২ – এখানে ক্লিক করে ফেইসবুক অথবা টুইটারে কানেক্ট হউন। দুটো একাউন্ট থেকেই আপনি কানেক্ট হতে পারেন।

চিত্র ৩ – আমি টুইটারে কানেক্ট হয়ে যাচ্ছি।

চিত্র ৪ – কানেক্ট হয়ে গেলে এ রকম দেখাবে।

চিত্র ৫ – ইন দ্যা ক্যাটাগরীতে ‘Best Use of Technology for Social Good‘ সিলেক্ট করে আই ভোট ফর এ গিয়ে ‘‘মেহদী হাসান খান’এর ব্লগ Mehdi Hasan Khan’s Blog‘ সিলেক্ট করে লাল ব্লক করা ‘ ‘ কীতে চেপে ভোট দিন। কত সহজ!

চিত্র ৬ – ভোট দিয়ে আপনি ইচ্ছা হলে আপনার এই কাজটির কথা টুইট করে দিতে পারেন। যাতে আপনার বন্ধুরাও জেনে যাবে।

চিত্র ৭ – ভোট শেষে আপনি এমন মেসেজ পাবেন – আপনার ভোট গৃহীত হয়েছে।

চিত্র ৮ – ‘অভ্র’ আমাদের ভালবাসা, আমাদের মুক্তি।

আপনাদের মুল্যবান সময়ের জন্য ধন্যবাদ নিন। যদি আরো কিছু সময় থাকে তবে পুরো ব্লগ/পোস্টটি আপনার নানা একাউন্টে শেয়ার (ফেইসবুক/ টুইটার) করে দিন। আমাদের আরো কিছু বন্ধু জানলে আমাদেরই লাভ হবে। অথবা পোস্টটি কপি করে নানা ব্লগে প্রকাশ করে দিন। এই ভোট যুদ্বে আমাদের জয়ী হতেই হবে।

[এই বিষয়ে আপনাদের মতামত সাদরে গ্রহন করা হবে। আপনার মতামতের অপেক্ষায় থাকব]