ক্যাটেগরিঃ স্বাস্থ্য

 

রোগ হলে আপামর সাধারন মানুষ ডাক্তার সাহেবদের কাছে যান, এটাই সাধারন রীতি। এছাড়া আর একটা শ্রেণী ডাক্তার সাহেবদের কাছে ব্যাপক ভাবে যান তারা হচ্ছেন নানান ঔষধ কোম্পানীর মেডিক্যাল রিপ্রেজেন্টেটিভ এবং বড় বড় কর্মকর্তা (এরা ডাক্তার সাহেবদের অবস্থা বুঝে ভিজিট করেন বড় বড় অফার নিয়ে!)। হা, এই শ্রেণী পারলে ডাক্তার সাহেবদের সাথেই বসে থাকতে চান (ভবিষ্যতে একজন বিশেষজ্ঞ ডাক্তার চাইলে প্রতিটা ঔষধ কোম্পানি থেকে একজন করে সর্বক্ষনিক সহকারী পাবেন বলে আমার মনে হয়!)! ডাক্তার সাহেবদের গতিবিধি, তিনি কি কি ঔষধ লিখেন, কোন কোম্পানীর ঔষধ লিখছেন তা তাদের কাছে বিরাট ব্যাপার। নিজ নিজ কোম্পানীর ঔষধ পারলে ডাক্তার সাহেবদের না বলেই রোগীকে খাইয়ে দিতে চান! মোবাইল এসে যাওয়াতে তারা এখন আরো শক্তিশালী, প্রতিটা প্রেসক্রিপশন এর ছবি তুলে সাথে সাথে মেইল করেন! আরো কত কি? কত কি দেখি!

না, বন্ধুরা। আজকের বিষয় ঔষধ কোম্পানীর এই লোক গুলো নিয়ে নয়। বিষয় হচ্ছে বিশেষজ্ঞ ডাক্তার। আপনারা যারা নানা অসুবিধায় পড়ে যে কোন বিশেষজ্ঞের কাছে গিয়েছেন তারা বুঝতে পারবেন, একজন বিশেষজ্ঞের কাছে পৌঁছা কি কঠিন কাজ। কতদিন আগে তার কাছে সিরিয়াল দিতে হয়? হঠাত করে জরুরী প্রয়োজন হলেও আপনি চাইলে কি একজন বিশেষজ্ঞ ডাক্তারকে দেখাতে পারবেন? আমার মনে হয় না। অন্তত ২৪ ঘণ্টা এবং নানান প্রভাব, সময় খাটিয়ে যদি পারেন পারতে পারেন, তবে হা হতে পারে!

যদি আপনি নিয়মনীতি না মেনে (!) একজন বিশেষজ্ঞ ডাক্তার এর সাথে দেখা করতে ছুটেন তবে আপনাকে সরাসরি চলে যেতে হবে সেই বিশেষজ্ঞ ডাক্তার সাহেবের চেম্বারে। আর আপনি গিয়েই প্রথমে যে ব্যক্তির দ্বারা বাধা পাবেন তিনি হচ্ছেন ডাক্তার এসিস্ট্যান্ট বা ডাক্তারে সহকারী (ডাক্তার সাহেব থেকেও তিনি বেশী ব্যস্ততার মধ্যে থাকেন। তার অনেক কাজ, তবে রোগীর সিরিয়াল ব্যবস্থাপনা, রোগীর ভিজিটের টাকা পয়সা সামাল দেয়া, সময় মত ডাক্তার সাহেবের জন্য খাবার দাবারের ব্যবস্থা করা, ডাক্তার সাহেবকে গাড়ীতে তুলে দেয়া, ইত্যাদি ইত্যাদি)।

মোটকথা একজন বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের জন্য একজন বিশ্বস্থ, শিক্ষিত, কর্মঠ ও ভদ্র ব্যবহারের একজন সহকারী থাকা চাইই চাই। অন্যথায় রোগী ব্যবস্থাপনা চলবেই না! গেইটের সামনে রোগীরা মারামারি করে নিজদের প্রান নিজেরাই দিয়ে/নিয়ে নিবে!

আমি আমার অভিজ্ঞতা থেকে বলি, এই যে উপরের প্যারায় একজন সহকারীর মাত্র কয়েকটা গুনের কথা বললাম (বিশ্বস্থ, শিক্ষিত, কর্মঠ ও ভদ্র ব্যবহারে), এই গুনের কোন সহকারীই কোন বিশেষজ্ঞ ডাক্তার রাখতে চান না! ব্যাপারটা আরো খুলে বলি (আমার অভিজ্ঞতা থেকেই), তিনি সব সময়েই চান অবিশ্বস্থ্য (আমাদের চোখে পড়ে), কম শিক্ষিত (ক্লাস সেভেন হলে ভাল), অকর্মঠ (তাকে ঠিক মত গাড়ী থেকে নামিয়ে উঠিয়ে ব্যাগ ধরে আনতে পারলেই হল) ও অভদ্র (অভদ্র না হলে রোগী সামলাবে কি করে!)!

ব্যাপারটা আমার মাথায় ধরে না। যিনি যত বড় বিশেষজ্ঞ ডাক্তার, তার সহকারী তত বড়ই অশিক্ষিত, অসভ্য, অভদ্র! কিন্তু কেন? একজন বিশেষজ্ঞ ডাক্তার কি এই বিষয়ে ভেবে দেখবেন না! তার চারপাশের সামান্য দশ হাতের মধ্যের পরিবেশ কি তিনি রক্ষা করবেন না!

(রোগী ও ডাক্তার সহকারীর একটা ঝগড়া দেখে এলাম এই মাত্র, বিশেষজ্ঞ ডাক্তার সাহেবের নাম বললে আপনারা চিনে ফেলবেন অনেকেই!)

পূর্বের পোষ্টঃ ডাক্তার সাহেবদের কাণ্ডজ্ঞান-১১