ক্যাটেগরিঃ খেলাধূলা

 

ফুটবল শব্দটি মনে আসলেই চোখের সামনে ভেসে ওঠে উজ্জ্বল, নির্মোহ, নিষ্পাপ একটি মুখ। যে মুখে মায়া আছে, আদর আছে, দরদমাখা হাসি আছে। আরো আছে  ভালো লাগার অদ্ভুত অনুরাগ।

আমি ফুটবলকে প্রথম চিনেছি যার নামে। সে তুমি–‘লিওনেল মেসি’। ফুটবলের সঙ্গে পরিচয় আমার তোমার নামেই। ফুটবলের প্রতি আমার যতোখানি ভালোবাসা; সত্যি করে বলতে গেলে, এটা তোমার জন্যই।

আসলে তোমাকে ভালো লাগে বলেই ফুটবলকে ভালো লাগে— এ কথা বলতে আমার কোনো দ্বিধা নেই।

আজ (সোমবার) কোপা আমেরিকার চিলির বিপক্ষে ফাইনালে টাইব্রেকারে  ৪-২ গোলে হেরেছে আর্জেন্টিনা। ঘটনাটা দুঃখজনক। কিন্তু এর চেয়েও দুঃখজনক, রীতিমতো হৃদয়বিদারক ঘোষণাটি ম্যাচ শেষ হবার দু’ঘন্টার মাথায় বিশ্ববাসীকে তুমি দিলে। সেটা তোমার আন্তর্জাতিক ফুটবল থেকে অবসরের ঘোষণা।
ফুটবলবিশ্বকে স্তম্ভিত করা তোমার অবসর নেবার সংবাদটা ফুটবলপ্রেমী মানুষদের লাখো হৃদয়কে ক্ষত-বিক্ষত করেছে।

আর্জেন্টিনা হেরে যাবার পর কিছুটা খারাপ লেগেছিল। কিন্তু এতোটা কষ্ট পাইনি, যতোটা কষ্ট পেয়েছি তোমার অবসরের ঘোষণায়। মানুষ তো হারতেই পারে। তাই বলে কী, এমন করে অবসর নিতে হবে! হয়তো হতাশা আর অভিমানে এই সিদ্ধান্তটা নিয়েছো। কিন্তু তোমার এ সিদ্ধান্তে যে বিশ্বের কোটি কোটি মানুষের হৃদয় বেদনায় কাতরাচ্ছে, সে কী তুমি বুঝবে না! কোটি মানুষের হৃদয় হতাশায় পুড়ছে, সে কী তুমি জানবে না!

আমরা তোমার কষ্ট বুঝি, প্রিয় ‘মেসি’। কিন্তু তুমি কী আমাদের কষ্ট বুঝতে পারছো?
ম্যাচ হেরে যাবার পর তোমার নিষ্পাপ কান্নার প্রতিটা ফোঁটা আমাদের হৃদয়কে স্পর্শ করেছে। তুমি কেঁদেছো, কাঁদিয়েছো। তোমার কান্না আমরা সইতে পারিনি। তোমার সাথে আমরাও কেঁদেছি। কিন্তু আমরা এমনটা চাইনি, যেমনটি তুমি ঘোষণা দিয়েছো। আমরা তোমার অবসর চাই না। তুমি না খেললে ঐ ’10’ নম্বর জার্সিটার কী হবে, বলতে পারো? হয়তো অন্য কেউ ওটা পরে মাঠে দৌঁড়োবে। কিন্তু সেটার পেছনে কি ঝলমলে ছাপায় লেখা থাকবে  ‘Messi’?  তবে আমরা কার নামে চিৎকার করবো— মেসি…মেসি…মেসি বলে, বলতে পারো?

তুমি চার চারবার আর্জেন্টিনার হয়ে ফাইনাল খেলেছো। শিরোপা নিতে পারোনি, তাই বলে কি তোমার সামর্থ্য, অসাধারণ ফুটবলদক্ষতা, চোখ ধাঁধানো পাসিং, দুর্লভ বাঁ পায়ের নান্দনিক শট–সবকিছু হারিয়ে গেছে? কই, না তো। কিচ্ছু তো হারায়নি। তবে তুমি কেনো এমন ঘোষণা দিলে? তোমার নিজের অভিমান আর হতাশার জন্য কোটি কোটি মানুষের মনকে ভেঙ্গে দিতে পারো না। তোমার জন্য লাখো মানুষের আর্তি বারবার বলে দেয়, তুমি কতোটা প্রিয় সবার কাছে। ফুটবল বলতে আমি তোমাকেই বুঝি। তুমিই ফুটবলকে ভালোবাসতে শিখিয়েছো। তোমার জন্যই আজো রাত জেগে ফুটবল খেলা দেখি। বন্ধুরা মিলে হৈ-হুল্লোড় করি তোমার নামে। চিৎকার করে গলা ফাটাই মেসি…মেসি…মেসি বলে। আমাদের এতো ভালোবাসা তোমার হৃদয়কে কী একটুও ছুঁবে না?
যদি ছোঁয়, তবে প্লিজ অবসর নিও না।
আমরা শিরোপা চাই না, শুধু সবুজ মাঠের বৃত্তাকার কুণ্ডলীতে ’10’ নম্বর জার্সি পরা ‘মেসি’ নামক ঐ নিষ্পাপ মানুষটির মোহনীয় উপস্থিতি চাই।

প্লিজ….আমাদের বঞ্চিত কোরো না।

কিচ্ছু চাই না। শুধু তুমি তোমার মতো করে সবুজ মাঠে ঘুরে বেড়াবে। আমরা দূর থেকে চিৎকার দিয়ে ওঠবো, মেসি…মেসি…মেসি..

আসলে তুমি না খেললে, হয়তো আর আমার ফুটবল খেলা-ই দেখা হবে না।