ক্যাটেগরিঃ ক্যাম্পাস

ইংলিশ মিডিয়াম স্কুল ছাড়া অন্য কোথাও পড়ানোর কথা অধিকাংশ অভিভাবক ভাবতেই পারেন না। আমাদের দেশের শিক্ষা ব্যবস্থা পরিবর্তন হওয়া জরুরী। সর্বত্র যদি একমুখী শিক্ষা ব্যবস্থা চালু করা হয় তবে (প্রয়োজন প্রাথমিক থেকে উচ্চ শিক্ষা পর্যন্ত) এতে করে বাংলা মাধ্যমে পড়া কোন ছাত্রকে প্রয়োজনে বাংলা মাধ্যম পরিবর্তন করে ইংলিশ কিংবা ইংলিশ পরিবর্তন করে বাংলায় অথবা মাদ্রাসা থেকে বাংলা বা ইংলিশ মাধ্যমে ভর্তি হওয়ার মত পেইন পোহাতে হবেনা।

আমাদের দেশে টেকনিক্যাল সাইড ব্যতিত সাধারণ ডিগ্রি প্রাপ্ত শিক্ষার্থীরা অধিকাংশ ক্ষেত্রেই সাবজেক্টস রিলেটেড কাজ পায় না। যার জন্য দেশের জনসংখ্যা বাড়ার সাথে সাথে বেকারের সংখ্যাও বাড়ছে প্রতিনিয়ত। একটি দেশের মূল উন্নতি নির্ভর করে শিক্ষিত জাতির ওপর। আর জাতি যদি শিক্ষিত না হয়; এলোমেলোভাবে শিক্ষালাভ করে ডিগ্রি প্রাপ্ত হয় তবে তা দেশের অর্থনৈতিক কল্যাণের হতে পারবে না কোনদিন। ধুকে ধুকেই অর্থনৈতিক অনুন্নয়ন নিয়ে এগিয়ে যাবে দেশ। উন্নত দেশগুলোতে ছোটবেলা থেকেই ছেলে-মেয়েরা ব্যবহারিক শিক্ষালাভ করার বিস্তর সুযোগ পায় বলে প্রকৃত মেধা যাচাই করা সম্ভব হয়। ছোট থেকেই কে কোন দিকে অগ্রসর হবে সেটাও অনেকটাই স্পষ্ট হয়ে যায়। যে পলিটিশিয়ান হবে তার শিক্ষালাভের ধরণ ভিন্ন। এরকম প্রতিটি ক্ষেত্রেই ভিন্নতাকে প্রাধান্য দেয়া হয় বলেই পেশাভিত্তিক শিক্ষায় তারা অনেক কম বয়সেই শিক্ষিত হতে পারে। যার দরুন দেশের ভবিষ্যত প্রজন্ম কোন ক্ষেত্রে দেশের নেতৃত্ব দেবে তা স্পষ্ট হয়ে যায়। কিন্তু আমাদের দেশের প্রেক্ষিতে আমরা উচ্চতর ডিগ্রি লাভ করার পরেও প্রফেশনাল হতে পারি না। আমরা স্পষ্ট করে করে অনেকেই বলতে পারি না যে, আমরা কি করতে চাই। কেও রাজনীতিক হতে চাইলেও- আমাদের দেশের অরাজকতার দৃশ্যই কেবল ভেসে উঠে; আর তখন কোন সন্তান রাজনীতিক হতে চাইলে পিতা-মাতা সবার আগে বাঁধা হয়ে দাঁড়ায়। দেশের উন্নতি করতে হলে শিক্ষা ব্যবস্থার উন্নতি করা জরুরী।