ক্যাটেগরিঃ গণমাধ্যম

এবিসি রেডিওকে দেওয়া সৈয়দ আবুল মকসুদ এর সাক্ষাত্কারভিত্তিক একটা লেখা আজকের প্রথম আলোতে পড়লাম।

“আমরা রাজনীতিবিদদের ঘুম ভাঙাতে চাই” এটাই ছিল ওনার লেখার মূল স্পিরিট।ওনার প্রতি এবং ওনার মত সকল বুদ্ধিজীবীদের প্রতি যথেষ্ট সম্মান প্রদর্শন করে আমি ওনার বক্তব্যের সাথে একটু ভিন্নমত পোষণ করছি।

একজন মিশুক মুনির এবং একজন তারেক মাসুদের মৃত্যতে ব্যথিত হয়ে আজকে সৈয়দ আবুল মকসুদরা সরকারের ঘুম ভাংগাতে ব্যস্ত।কিন্তু এর আগে ওনারা কোথায় ছিলেন? মিশুক মুনির বা একজন তারেক মাসুদের মৃত্যুর আগে ওনারাও কি ঘুমিয়ে ছিলেন?মিশুক মুনীর বা তারেক মাসুদের মৃত্যু-ই কি ওনাদের ঘুম ভাংগিয়েছে? ঘুম থেকে জেগে কি এখন তারা সরকারের ঘুম ভাংগাতে ব্যস্ত?

সরকার আসলে ঘুমিয়ে নেই। সরকার কক্ষনো ঘুমান না।সরকার যা করে তা সচেতন অবস্থায় করে।অনেক জটিল হিসেব-নিকেশ করে ,রাষ্ট্র যন্ত্র ব্যবহার করে ,অনেক সু-কৌশলে ওরা কাজ করে।ওরা দিন-রাত ২৪ ঘন্টা জেগে থাকে, কক্ষনো ঘুমায়না। যদি ঘুমান তো এই বাংলাদেশ নামক রাষ্ট্রকে লুটেপুটে খাবেন কে?এই না-ঘুমানোর দলটাকে আপনি এসেছেন জাগাতে। তাও আবার হঠাৎ ঘুম থেকে জেগে।
তারেক মাসুদ এবং মিশুক মুনীর আপনাদের ঘুম ভাংগিয়েছেন আর এখন আপনারা সরকারের ঘুম ভাংগাতে উঠে পড়ে লেগেছেন।

জেগে থাকতে হবে আপনাদেরকে এবং জাগিয়ে রাখতে হবে আমাদের মত সাধারণ জনগনকে।তারেক মাসুদ বা মিসুক মুনির এর মৃত্যুর পর আচমকা জেগে চোখ মুছতে মুছতে কিছু বলার চেয়ে সর্বদা জেগে থাকা উচিত নয় কি? তাহলে তো আর তারেক মাসুদ কিংবা মিসুক মুনিরদের হারাতে হয়না।

***
“আমরা রাজনীতিবিদদের ঘুম ভাঙাতে চাই”
লেখাটি এখান থেকে পড়তে পারেন।