ক্যাটেগরিঃ অডিও

একটি ছোট্ট আন্দোলন কি শুরু করা যায়?

একটা ছোট্ট মুভমেন্ট কি শুরু করা যায়? বি এম ডি সিতে এযাবতকালে পাশ করা সকল এম বি বি এস এবং বিডিএস দের তথ্য থাকার কথা। এইটি কোন ওয়েব সাইট করে অনলাইনে তুলে দিলেই যে কোন মানুষ জানতে পারবেন কোন ডাক্তার, কোন বিষয়ে, কোথায় সার্ভিস দেন। এইখানে ডাক্তারের নাম, ছবি, লাইসেন্স নম্বর, বর্তমান শিক্ষাগত যোগ্যতা এবং হাসপাতাল/চেম্বারের ঠিকানা দেওয়া থাকবে। এতে করে ভূয়া ডাক্তার সেজে চিকিৎসা দেওয়া বন্ধ হবে- যে কোন মানুষ , যে কোন ডাক্তারের তথ্য বি এম ডি সি থেকে মিলিয়ে নিতে পারবেন।

এর পাশাপাশি, এই নিয়ম এর প্রয়োগ (যদি থেকে থাকে) বা তৈরির জন্য চাপ দিতে হবে যেন প্রতিটা ডাক্তার তার লাইসেন্স/সার্টিফিকেট সহজেই চোখে পড়ে এমন জায়গায় দেওয়ালে ঝুলিয়ে রাখেন। চেম্বারে তো বটেই, হাসপাতালেও। প্রতিটা প্রেসক্রিপ্সহনে বি এম ডি সি রেজিস্ট্রেশন নাম্বার উল্লেখ থাকতে হবে।

অনেক ডাক্তার এম বি বি এস পাশা করার পরে আর পড়ালেখা করেন না/ সুযোগ পান না। ফলে চিকিৎসা বিজ্ঞানের সাম্প্রতিকতম পরিবর্তন গুলো সম্পর্কে তাদের কোন ধারণাই নেই। সেই মান্ধাত্তার আমলের চিকিৎসাই তারা করতে থাকেন। এই জন্য চিকিৎসকদের প্রতি বছর ২০-৩০ ঘন্টার ক্লাস /ট্রেনিং এর ব্যবস্থা থাকা এবং বাধ্যতামূলক করা উচিৎ। এছাড়াও প্রতি ৫ বছর (সময়টা আলোচনা সাপেক্ষ) পর পর বি এম ডি সি রেজিস্ট্রেশন আপডেট করার পরীক্ষা নেওয়া উচিত। নিজ নিজ বিষয়ে ডাক্তারেরা লেটেস্ট জ্ঞানটা অর্জন করেছেন কি না- এই পরীক্ষায় পাশের মাধ্যমে তাদের চিকিৎসা সেবা দেওয়ার লাইসেন্স বলবদ থাকবে। নইলে তাকে ট্রেনিং করতে হবে এবং যতদিন না পাশ করে, ততদিন সার্ভিস মুলতবি থাকবে।

সুতরাং, মূলত তিনটি দাবীতে আন্দোলন চলবে-

১। চিকিৎসা সেবার সাথে জড়িত মানুষের তথ্য সহজেই অনলাইনে এবং বই আকারে পাওয়া
২। রুমে এবং প্রেসক্রিপশনে ডাক্তারের লাইসেন্স/রেজিস্ট্রেহসন নাম্বার উল্লেখ থাকা
৩। চিকিৎসকদের নিয়মিত সাম্প্রতিকতম জ্ঞান অর্জনে বাধ্য করা।