ক্যাটেগরিঃ ব্লগ

 

আমরা যারা বাসা ভাড়া করে ঢাকায় থাকি তাদের অনেক রকমের হয়রানির শিকার হতে হয়। ব্যাচেলর হলে বাসা ভাড়া দেওয়া হয় না, কেউ কেউ দিলেও ভাড়া হবে ফ্যামিলি ভাড়ার দেড়গুণ, বাসায় বেশি অতিথি আসা নিষেধ, দেরি করে ফেরা নিষেধ, মোটর সাইকেল থাকলে তাতে বেশি আওয়াজ করা নিষেধ। এবার নতুন করে যোগ হলো ডেসকো প্রি-পেইড মিটারের টাকা ডেসকো অফিসে গিয়ে ভাড়াটিয়াকেই দিতে হবে।

ঈদের বন্ধে বাড়ি থেকে ফিরেই দেখি বাসায় বিদ্যুতের লাইন অফ, কেয়ারটেকের মারফত জানলাম বাড়িওয়ালা ডেসকোর অনুরোধে প্রি-পেইড মিটার লাগিয়েছে, এখন উপায় একটাই আর তা হলো ডেসকো অফিসে গিয়ে মিটার কার্ড রিচার্জ করে আনলেই কেবলমাত্র বিদ্যুৎ পাবো, ঈদের আগে এইসবের মাথা-মুণ্ডু কিছুই জানি না, সারা রাত বিদ্যুৎহীন কাটার পর বাধ্য হয়ে নিজের অফিসের কাজ ফেলে ডেসকো অফিসে যেতে হলো।

5_272068

বাসার একটু কাছেই ডেসকো অফিস; মিটার কার্ড রিচার্জ করতে আসা আমিই একমাত্র ব্যাক্তি, ভাবলাম কাজটা তাড়াতাড়ি সেরে অফিসের কাজ করতে পারবো। যাহোক ৫ মিনিট, ১০ মিনিট করতে করতে টানা দেড় ঘন্টা আমাকে বসে থাকার পর কর্তব্যরত ব্যক্তি কার্ড টি রিচার্জ করতে পারলেন এবং আমাকে বললেন ভাই সফটওয়্যার তা কিছু টাইম পর পর লগআউট হয়ে যাচ্ছে, তাই আপনাকে কষ্ট দিতে হলো। আমি মনে মনে রাগ হলেও তাকে কিছুই বলি নাই, কারণ আমি যেহেতু ১১ বছর  ধরে এই ধরনের সফটওয়্যার বানাই তাই ওই সফটওয়্যার এর ত্রুটি আমি বুঝতে পারি। আমি শুধু বললাম, অবকাঠামো রেডি না করে এ ধরনের একটা বিষয় ম্যানেজ করা অসম্ভব। বাসায় রাত তিনটার সময় বিদ্যুৎ না থাকলে কার্ড রিচার্জ করার ব্যবস্থা বিকাশের মতো বা অন্য কোনো মাধ্যম রেডি রাখতে হবে অন্যথায় ঢাকা শহরের দুই কোটি মানুষের রোষাণলে পড়তে হবে। আপনারা ডেসকো প্রি-পেইড মিটার রিচার্জ করার বিষয়ে পাবলিক আওয়ার্নেস বাড়ান, কর্তব্যরত ব্যক্তিটি আমার কথা গুরুত্ব দিয়ে শুনলেন, জানি না তারপর কি হবে।

আমরা যারা বেসরকারি জব করি তাদের সেকেন্ড গুনে অফিস বেতন দেয়। তাইলে আমরা ডেসকো অফিসে যাবো কখন? হয়তো আমাদের কথা ভেবে বেসরকারি ব্যাংকগুলো এটিএম কার্ড সার্ভিস বানিয়েছে অন্যথায় বেঁচে থাকা দায় হতো। সপ্তাহে একদিন অফিস ছুটি বলে বাজার করতে পারি, কোনো কোনো সপ্তাহে ছুটি বলে কোনো বিষয়ই থাকে না। আমাদের দেশের বেসরকারি অফিসের চিত্র এমনই।

একটা সুন্দর উদ্যোগ সফল করতে হলে আগে থেকেই অনেক জরিপ চালাতে হয়, জরিপের ফলাফলকে গুরুত্ব দিতে হয়, জনমত বুঝতে হয়, হা সূচক জনসমর্থন গড়ে তুলতে হয়। অন্যথায় অনেক ভালো উদ্যোগ  হওয়া সত্ত্বেও  মুখথুবড়ে পড়ে।