ক্যাটেগরিঃ অর্থনীতি-বাণিজ্য

 

ডেসটিনির বিরুদ্ধে বিষোদগার উৎপাদনকারী হলুদ বাবুরা গতকাল ১০ জুন একযোগে আদালতে গড়হাজির হয়েছেন। কী সাংঘাতিক একতা !! ৪৫ লাখ লোকের ৯০ লাখ চোখ ছিল সত্যনিষ্ঠ এই সংবাদ পরিবেশকদের উপর। ৪৫ লাখ লোক যে প্রতারনা ধরতে পারেনি– হলুদ বাবুরা তা ধরেছেন। এতগুলো লোকের উপকার করার পথে হঠাৎ করেই পিছপা হলে দেখতে কেমন যেন লাগে। সত্য উদঘাটন করতে গড়িমসি করবেন না please‚ সময় ক্ষেপন করবেন না please। চায়ের দাওয়াত পেয়ে যদি গ্রহন করে ফেলেন তবে ৪৫ লাখ লোক সঠিক তথ্যটি আপনাদের নিকট থেকে জানতে পারবে না। আমরা আপনাদের মুখ দিয়েই সঠিক তথ্য জানতে চাই।

প্রিয় হলুদ বাবুরা, ডেসটিনির সদস্যদের ভিতরের ক্ষোভ অনুভব করতে পারেন কি? প্রতিটি জেলায় ডেসটিনির সদস্যরা আপনাদের বিরুদ্ধে মাননীয় ডিসিদের নিকট স্বারকলিপি দিয়েছেন– এই খবরটা কি ছেপেছিলেন? আমার হালাল উপার্জনে বাঁধা হওয়ার অধিকার কে দিল আপনাদের? ডেসটিনি হতে উপার্জনের টাকা হাতে পাওয়ার আগেই সরকারী কোষাগারে ট্যাক্স জমা দেই। আপনারা জমা দেন বছর শেষে। আপনাদের ট্যাক্সের হিসাব জানতে চাই। ডেসটিনির অথরিটিকে অনুরোধ করবো সরকারের নিকট দাবী তুলুন– আমরা ট্র্যানসপারেনসি ইনটারন্যাশনাল দিয়ে উনাদের অডিট চাই। আমরা দেখতে চাই কে সত্যের পথে। আরো জানতে চাই মিডিয়ার হলুদ ধনকুবেরগুলো দেশের সাধারন মানুষের জন্য কি কি করেছেন। তাদের ইতিহাস জানতে চাই।

প্রিয় হলুদ বাবুরা, আপনাদেরকে চিনে ফেলেছি। সত্য বের করতেই হবে আপনাদের‚ নয়তো আমরা আপনাদের সত্যবাদিতা জাহির করে দিব। আমরা জানতে চাই কোন মিডিয়াটি ডেসটিনির নিকট ১ কোটি টাকা চেয়েছিল? কেন চেয়েছিল? অতীব প্রয়োজন হলে সাহায্যের জন্য নিউজ দিক‚ ডেসটিনির সদস্যরা জনপ্রতি ২ টাকা করে দিলেই ১ কোটি হয়ে যাবে। ধিক, ধিক এবং ধিক।