ক্যাটেগরিঃ মুক্তমঞ্চ

 

তসলিমা নাসরিন যার একজন অনুরাগী পাঠক , ভক্ত ও শুভাকাংখী আমি । তার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন জন্য আমি আমার সাধ্য মত চেষ্টা করে ও ব্যর্থ তার পর ও চেষ্টায় আছি , আছি তার স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের অপেক্ষায় । তবে অনলাইন নিউজ প্রোটাল বাংলা ট্রিবিউনে “রেলমন্ত্রীর বয়স এবং বিয়ে” তার লেখার আমি একটু অন্য যুক্তিতে আসতে চাই ।কিছু দিন আগে তিনি টুইটারে লিখেছিলাম তার বয়ফ্রেন্ড তার চেয়ে নাকি কুড়ি বছরের ছোট। তার এই টুইট নিয়ে আমাদের অনেক মিডিয়াই অনেক কিছু লিখেছে আমি সেদিকে যাব না সম্পর্ক ও বিবাহ এটা নেহায়েতই ব্যাক্তি গত ব্যাপার সম্পর্ক ও বিবাহ এটা যার যার ভাল লাগা ও ভালবাসার ব্যাপার তাই একটা কথা আছে প্রেম কোন বয়স বা বাধা মানে না প্রেম ,সম্পর্ক হলো পানির মত । যাই হউক তসলিমা নাসরিন লিখেছেন তাকে নাকি টেক্কা দিয়ে ৬৭ বছর বয়সী রেলমন্ত্রী ধুমধাম করে বিয়ে করে বসলেন তাঁর চেয়ে প্রায় চল্লিশ বছরের ছোট এক মেয়েকে। কোথায় কুড়ি আর কোথায় চল্লিশ। আমি তো নেহাতই বয়ফ্রেন্ড অবধি। আর উনি রীতিমত বিয়ে করলেন, রীতিমত গায়ে হলুদ করে, প্রচুর গয়না গাটি আর লাল বেনারসি পরে সাজানো কনেকে, আর নিজে মাথায় পাগড়ি টাগড়ি চাপিয়ে। কোনও ৬৭ বছর বয়সী মহিলার কি সাধ্য আছে ২৯ বছর বয়সী কোনও ছেলেকে এভাবে ধুমধাম করে বিয়ে করার? মন্ত্রীর বিয়েতে যেভাবে সমাজের নারীপুরুষ উৎসব করলো, এমন জমকালো উৎসব কি করবে প্রায় সত্তর বছর বয়সী মহিলা আর কুড়ির কোঠায় বয়স এমন কোনও ছেলের বিয়েতে ?

তসলিমা নাসরিনের বয়স ক্রমানয়ে ই বাড়ছে হয়তো অল্প কিছু দিনের মধ্যে তার রজঃশ্রাব বন্ধ হয়ে যাবে তাই হয়তো ক্রমানয়ে তার স্মৃতি শক্তি ও কিছুটা লোপ পেতে বসেছে তাই হয়তো তিনি ভুলে গেছেন ২০০৮ সালের ৭ই জুলাইর কথা সেদিন বাংলাদেশের ছোট পর্দার জনপ্রিয় অভিনেত্রী সুবর্ণা মুস্তাফা ৫০ বছর বয়সে দ্বিতীয় বারের মত বিয়ের পিড়ীতে বসেছিলেন তার থেকে ২২ বছরের ছোট নাট্য পরিচালক বদরুল আনাম সৌদের সাথে যদি ও এটা ছিল বদরুল আনাম সৌদের প্রথম বিয়ে তাই সুবর্ণা মুস্তাফা ও বদরুল আনাম সৌদের বিয়েতে ও মোটা মুটি ধুমধাম কম হয় নি দশ লাখ টাকা দেনমোহর গায়ে হলুদ বৌ-ভাত সব ই হয়েছিল । তা নিয়ে ও কিন্ত আমাদের গনমাধ্য গুলিতে কম কিছু হয় নি । আমি সুবর্ণা মুস্তাফা ও বদরুল আনাম সৌদ কিংবা রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক ও হনুফা আক্তার রিক্তা নিয়ে কোন মন্তব্য করতে চাই না শুধু বাংলা গানের ঐ কলি টা ই বলতে চাই ” যার নয়নে যারে লাগে ভাল যার দিলে যারে দিল হারালো। বয়স কালে দিওয়ানা হলে লোকের কথায় কি আসে যায় বলো ।”