ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

 

পুলিশ (Police)-একটি অতি পরিচিত শব্দ । ইংরেজি পুলিশ (Police) শব্দ বিশ্লেষন করলে আমরা পাই P=Polite (মার্জিত), O=Obedient (বাধ্য), L=Loyal (বিশ্বস্ত), I= Intelligent (বুদ্ধি সম্পন্ন ), C= Courageous (বীরত্বপূর্ণ), E= Efficient (দক্ষতা)। যার মূল অর্থ দাড়ায় আইন শৃঙ্খলা ও শান্তি রক্ষা করার ব্যবস্থা অর্থাৎ পুলিশ বলতে বুঝায় রাষ্ট্র তথা সমাজের সমগ্র আইন শৃঙ্খলা রক্ষার প্রতিষ্ঠান, এই প্রতিষ্ঠানের সদস্যদের কাজ ই হলো রাষ্ট্র তথা নাগরিকের শান্তি-শৃঙ্খলা ও জনস্বার্থ রক্ষা করা।

কিন্তু প্রশ্ন হচ্ছে আমাদের পুলিশ বাহিনী তা কতটুকু মানছে এবং কার্যক্ষেত্রে তার বাস্তবায়ন ই বা কতটুকু করতে পারছে ? যদি আমাদের পুলিশ বাহিনী তা বাস্তবায়নে সচেষ্ট হতো তা হলে হয়তো প্রতিনিয়তই নানা অপকর্মের জন্য সংবাদের শিরোনাম হতে হতো না তাদের। অতি সাম্প্রতি মোহাম্মদপুর থানার উপপরিদর্শক মাসুদ শিকদার ও তা সহকর্মীদের দ্বারা নির্যাতনের শিকার হয় সাবেক গনমাধ্যম কর্মী ও ব্যাংক কর্মকর্তার গোলাম রাব্বী । এ নির্যাতনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ মুখর হয়ে উঠে সোস্যাল মিডিয়া সহ সমগ্র সংবাদ মাধ্যম । মিডিয়ায় এই প্রতিবাদী ভূমিকা পালনের কারনে ই এসআই মাসুদ শিকদারকে সাজা হিসেবে অন্তত ক্লোজ করা হয়েছে ।

গোলাম রাব্বীর বর্ননা মতে মোহাম্মদপূরের একটি এটিএম বুথ থেকে টাকা তুলে বের হওয়ার পর ই পুলিশের সদস্যরা তাকে তাদের অফিসারের নিকট জামার কলার ধরে নিয়ে যায় এবং তার কাছে ইয়াবা আছে এমন অভিযোগে তাকে পুলিশের গাড়ীতে তোলা হয় সেই সাথে রাব্বীর মোবাইল ফোনটি ও কেড়ে নেয়া হয় মুক্তির জন্য পাঁচ লাখ টাকা দাবী করা হয় অন্যথায় আসে ক্রশফায়ারে হত্যার হুমকি । ভাগ্যিস পুলিশের তথাকথিত ক্রশফায়ারে হত্যার তালিকায় গোলাম রাব্বীর নাম উঠেনি ।

পুলিশের বিরুদ্ধে নানান অপরাধের অভিযোগ নতুন নয় পুলিশ সদর দপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, রাজধানীসহ সারা দেশে প্রতিমাসে গড়ে ১২ শতাধিক ছোট-বড় অপরাধ কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়ছে পুলিশ । গত তিন বছরে অর্ধ লক্ষাধিক অভিযোগ জমা পড়ছে পুলিশ সদর দপ্তরের সিকিউরিটি সেল এবং ডিসিপ্লিন বিভাগে। গত ২০১৪ সালে প্রায় ১৫ হাজার অভিযোগ জমা হয়েছে। এ ছাড়া ২০১২ সাল থেকে ২০১৪ সালের জুন মাস পর্যন্ত দুর্নীতি ও শৃঙ্খলাভঙ্গসহ নানা অপরাধে পুলিশের বিভিন্ন পদমর্যাদার ৩৪ হাজার ১২৯ জন পুলিশ সদস্য শাস্তি পেয়েছেন। এর মধ্যে বড় ধরনের অপরাধে গুরুদণ্ড দেয়া হয়েছে ২ হাজার ৪শ পুলিশ সদস্যেকে । লঘু দণ্ড পেয়েছে ৩১ হাজার ৭২৯ পুলিশ। (তথ্যসূত্র- )

এর পর ও নূন্যতম চরিত্রের পরিবর্তন ঘটেনি পুলিশ সদস্যদের এসব অপরাধ সেই ঔপনিবেশিক আমল থেকেই । যদিও অনেকেই বলছেন পুলিশের ওপর সরকারের অধিক নির্ভরশীলতা, রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে ঘায়েলের হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করা ও নিয়ন্ত্রণহীনতার কারণেই কতিপয় পুলিশ সদস্য অবৈধ পন্থায় টাকা উপার্জনের জন্য জড়িয়ে পড়ছে নানা অপকর্মে, যা জাতির জন্য সত্যিকারেই দুঃখজনক। নানা করনেই আমাদের পুলিশ বাহিনী অনেকটা জনবিচ্ছিন্ন হয়ে পরেছে তারা যে জনগনের সেবক কেন জানি মনে হয় সেটা শুধু কাগজে কলমেই সীমাবদ্ধ । উপরের পুলিশ শব্দের বিশ্লেষন থেকে যা দেখি তা আমাদের পুলিশ বাহিনীর সাথে আদৌ কোন মিল না থাকাই আমাদের দুর্ভাগ্যের কারণ ! এখন ই সময় আতীতের সমস্ত ভূল শুর্দ্ধে সঠিক পথে পথ চলা শুরু করবে আমাদের পুলিশ এটাই প্রত্যাশা ।