ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

 

আমরা হুট করেই বলে ফেলি, চাঁদের গায়েও কলঙ্ক আছে। আছে বৈকি, চোখে তো কোনদিন দেখিনি। কোন একজন বলে গেছেন, তাই যুগযুগ ধরে আমরা আওরাচ্ছি। আমাদের চিন্তাশক্তি খুব বেশি দুর যায় না। গতানুগতিক ধারায় যা হওয়ার তাই হচ্ছে। এর মাঝেও কিছু কিছু জিনিস ব্যতিক্রম হয়ে আমাদের মাঝে ধরা দিচ্ছে। যার মধ্যে কিছু কাম্য আর কিছু আদৌ কাম্য নয়। এমন ঘটনা অহরহই ঘটছে। কিন্তু নিতান্তই কিছু ঘটনা আমাদের সবার মধ্যে কিছু বাজে প্রভাব ফেলছে। যার দরুন আজীবন আমাদের মনের মধ্যে কিছু প্রশ্ন থেকেই যায়। এই যেমন ধরুন, গতকাল আমাদের শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মুন্নুজান সুফিয়ান তাহসিনা রুশদিকে (নিখোঁজ ইলিয়াস আলীর স্ত্রী) বললেন, আপনি (রুশদি) নিশ্চয় জানেন আপনার স্বামীকে কে বা কারা খুন করেছেন, আপনি তাদের নামগুলো প্রধানমন্ত্রীকে বলেন, উনি এর ব্যবস্তা করবেন। আপনি এখন বিধবা, আপনার স্বামীর খুনিদের খুজে বের করতে আপনি খুনিদের নাম প্রধানমন্ত্রীকে বলেন। আজীবনের সেই প্রশ্ন এখানেই থেকে যায়, সারা বাংলার মানুষ জানে ইলিয়াস আলী গুম হয়েছে, সে নিখোঁজ। অথচ মন্ত্রী বলে গেলেন সে(ইলিয়াস) খুন হয়েছে এবং রুশদিকে বললেন, তিনি বিধবা । প্রশ্ন হচ্ছে মন্ত্রী কি করে জানেন যে ইলিয়াস খুন হয়েছে। তিনি এতটা নিশ্চিত কি করে হলেন। তাহলে কি তিজি এই গুম এবং খুন সম্পর্কে সব কিছু জানেন। আর যদি জেনে থাকেন তাহলে দেশ ও জাতির কথা বিবেচনায় রেখে তিনি কেন প্রধানমন্ত্রীকে এসব বলছেন না। তাহলে নিশ্চয় এখানে কোন গুটি চালা চালি হচ্ছে। আমার এই কথা গুলো শুধু মাত্র প্রশ্ন থেকেই উৎপত্তি লাভ করেছে। আপনি জানেন বা না জানেন, আপনার এই কথা গুলো কি সরকারের দেশ পরিচালনাকেই প্রশ্নবিদ্ধ করল না? এক মন্ত্রী বললেন জীবিত উদ্ধারের চেষ্টা চলছে, আর ইনি বললেন মৃত। বাহ: এই আমাদের সরকার, এই আমাদের মন্ত্রী। আমার বলতে ইচ্ছা করে, এদেশ আমার সোনায় সোহাগা, ছাইয়ের অতলে বাস।