ক্যাটেগরিঃ আন্তর্জাতিক

 

গুলিস্তানের ফুটপাথে একটি পুরাতন জুতার বাজার ছিল। ১৯৭০ দশকের প্রথম দিকে যখন প্রথম ঢাকা আসি তখন সে বাজারে জুতা কিনতাম। জুতাগুলো খুবই টেক সই ছিল। বাজারটা বসতো বিকেল থেকে রাতের প্রথম প্রহর পর্যন্ত। আমরা যারা তখন ভাল স্টোরের দামি জুতা কিনার সামর্থের বাইরে ছিলাম বা বেকার ছিলাম তারাই বেশীর ভাগ ছিলাম সেই বাজারের খদ্দের। কথিত ছিল যে মসজিদ বা অন্য কোন অনুষ্ঠান থেকে চোরদের চোরা জুতাগুলো সে বাজারে বিক্রি হত। ক্রেতাদেরও একটু বেশী আগ্রহ ছিল সেই জুতাগুলো কিনার জন্য কারন জুতাগুলো ছিল ভাল এবং দামও কম। হালে আপনি লক্ষ করলে দেখবেন জুতার বাজারটি ঠিকই সেখানে আছে এবং পুরাতন জুতার বাজার হিসেবেই বহাল তবিয়তে আছে। মানুষের পুরাতন ভাল জুতা কিনার যে আগ্রহ ছিল সেই ঐতিহ্যটা ধরে রাখার চেষ্টা চলছে তবে সেখানে কোন
পুরাতন জুতা নাই বললেই চলে। বাজারের নিম্ন মানের নতুন জুতা কালি মেখে পুরাতন রূপে প্রদর্শন করা হচ্ছে। তার মানে হচ্ছে এখানেও একটা বিষয় লক্ষ্য করা যাচ্ছে যে,পুরাতন চোরা জুতার পাইরেসী হচ্ছে।

যাই হোক,এবার মূল বিষয় আসি। আড়াই লাখ মার্কিন তারবার্তা ফাঁস করে উইকিলিকস বিশ্বে এক যুগান্তকারী আলোড়ন সৃষ্টি করেছে। পৃথিবী থেকে বিশ্বাস যে মুহূর্তে বিলুপ্তির পথে ঠিক সেই মুহূর্তে উইকিলিকসের আর্বিভাব হল এক সত্য বার্তা নিয়া, যাহা বিশ্ব মানব সত্যনিষ্ঠ বলে ভাবতে শুরু করল এবং এক পর্যায় বিশ্বাসের তুঙ্গে স্থান পেল। যাদের টুঁটি চেপে ধরার জন্য উইকিলিকসের আর্বিভাব সেই মার্কিনিরা নিজেদের স্বার্থ রক্ষা করার জন্য উইকিলিকসের তথ্যকে বিকৃত করতে পারে বলে একটা ধারনা সমাজে দানা বাঁধছে বলে প্রতীয়মান হচ্ছে। যেমন রাতে বেলা চোর পড়লে মহল্লাবাসী যখন দৌড়ে চোর তাড়া করে ঠিক চোর বেটাও সাধু সেজে চোর চোর বলে চোর তাড়ায়। সুতরাং সাধু সাবধান ! পুরাতন জুতার যেমন পাইরেসী হচ্ছে তেমনি উইকিলিকসের পাইরেসীর সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে।