ক্যাটেগরিঃ পাঠাগার

 
1234

 

কাল বইমেলায় প্রকাশিত হয়েছে আমার প্রথম উপন্যাস “জনপ্রিয়তম লেখকের মৃত্যু বিক্রির গল্প”। আমার ব্যক্তিগত আনন্দের এই সংবাদটা আমার ব্লগ পরিবারের সাথে শেয়ার করছি। উপন্যাসের নামই এটার বিষয়বস্তু সম্পর্কে একটা ধারনা দিয়ে দেয় বলে আমার ধারনা। তারপরও ওই উপন্যাসের ফ্ল্যাপে দেয়া কিছু কথা নীচে দেয়া হল। বইটি পাওয়া যাবে অমর একুশে গ্রন্থমেলায় ‘শব্দশৈলী’ এর স্টলে (স্টল নম্বর ১০৬,১০৭)। বইমেলায় গেলে একবার বইটি হাতে নিয়ে দেখবেন সবাই কী ছাইপাশ লিখেছি; সম্ভব হলে কিনবেন – এটা নিশ্চয়ই খুব বাড়াবাড়ি চাওয়া হয়ে গেল না। ও হ্যাঁ, ব্লগ সংকলন ‘নগর নাব্য’ ও কিন্তু একই প্রকাশক প্রকাশ করেছেন।

উপন্যাসের বিষয়বস্তু সম্পর্কে ফ্ল্যাপে লিখা কথাঃ
আহমেদ হুমায়ূন, বাংলাদেশের জনপ্রিয়তম ঔপন্যাসিক, নাটক-সিনেমা পরিচালক, ক্যন্সারে আক্রান্ত হয়েছেন। পৃথিবীর অন্যতম শ্রেষ্ঠ ক্যান্সার হাসপাতালে দীর্ঘদিন অতি ব্যয়বহুল চিকিৎসা নেন তিনি। কিন্তু না, শ্রেষ্ঠতম চিকিৎসা, কোটি মানুষের ভালবাসা, প্রার্থনা কোন কিছুই তাঁকে বাঁচিয়ে রাখতে পারেনি। সবসময় মানুষের মনোযোগের কেন্দ্রবিন্দুতে থাকা মানুষটির এই ভয়ঙ্কর অসুস্থতা এবং মৃত্যু স্বাভাবিকভাবেই দেশের প্রায় সব মানুষের মনোযোগের কেন্দ্রবিন্দুতে থাকে অনেকগুলো মাস।

এই পুরো সময়টা মানুষের মনোযোগ, আগ্রহ, কৌতূহল মেটানোর জন্য ঝাঁপিয়ে পড়ে প্রিন্ট আর ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া – তাঁর অসুস্থতা, চিকিৎসা, মৃত্যু নিয়ে নানা রকম খবর আর আয়োজন দিয়ে মানুষের ‘ক্ষিধে’ মিটিয়ে যায় প্রতিনিয়ত। সাথে প্রকাশনা সংস্থাগুলোকে নিয়ে মিডিয়াগুলো লেখকের চিকিৎসায় সাহায্যের জন্য নানা রকম পদক্ষেপ নিতে থাকে। আপাতদৃষ্টিতে মনে হয় এই অসুস্থতা আর মৃত্যুকে নিয়ে দারুণ সব মানবিক কাজ করছে তারা।

কিন্তু মানুষের মনোযোগ আর আগ্রহ সবসময়ই খুলে দেয় নানা ব্যবসার পথ। বিদ্যমান অর্থনৈতিক ব্যবস্থা সেই সুযোগ হাতছাড়া করার মত বোকা নয় মোটেও। মানুষের আগ্রহের প্রতিটি জিনিষকে পণ্য বানানো হবেই, আর সেটা নিয়ে ব্যবসা করা হবেই – হোক সেটা কোন মানুষের অসুস্থতা বা মৃত্যুর মত মর্মান্তিক ব্যাপারও। এই উপন্যাসে লেখক এই যাবতীয় কর্মকান্ডের ‘অন্যদিক’ দেখতে এবং দেখাতে চেষ্টা করেছেন – দেখাতে চেয়েছেন একটি ‘বিখ্যাত’ অসুস্থতা আর সেটা জনিত মৃত্যুও একটি ‘মানবিক’ মুখোশের মাধ্যমে কী চমৎকারভাবে বিক্রি করা হয়।
আর হ্যাঁ, এটা একটা উপন্যাস, কোন সত্য ঘটনার পুঙ্খানুপুঙ্খ বর্ণনা নয়।