ক্যাটেগরিঃ মানবাধিকার

 

কিছু কিছু এনজিও কর্মীদের কাজ দেখে মাথা ঘুরাইতেছে, ফেসবুকে তাদের পোষ্ট দেখে মনে হয় তারা একমাত্র দেশ ও সমাজ প্রেমি। বিশ্ব শিশু দিবস, বিশ্ব ছড়ি দিবস, বিশ্ব নারী দিবস এবং সর্বশেষ বিশ্ব হাত ধোয়া দিবস এই সব দিবসে হাতে গোনা কয়েকজনের হাত পরিস্কার করে যেমন ভাবে ছবি পোষ্ট করছে মনে হচ্ছে হাত এর সাথে সাথে দেশের ময়লা পরিষ্কার করছে। আরে ভাই আপনারা আগে নিজের ময়লা পরিষ্কার করনে, দাতা সংস্থা হতে দশ টাকা এনে নয় টাকা নিজের পকেটে রেখে এক টাকা দিয়ে কেন ময়লা পরিষ্কার করার নাটক করেন। আচ্ছা আপনারা এই হাত ধোয়া দিবসে কয়টা সাবান কিনেছেন ময়লা পরিষ্কার করার জন্য। এক ডজন সাবান কিনে কয় ডজন হ্যান্ডওয়াশ আর কয় ডজন সাবান এর টাকা পকেটে ভরেছেন। বিদেশিদের টাকার উপর দশ/বিশ জন শিশুর হাত পরিষ্কার করে ফেসবুকে ছবি পোষ্ট করছেন নিজের পকেটের টাকা দিয়ে আজ অবদি কয় জন শিশুর হাত পরিষ্কার করেছেন? নিজের টাকা দিয়ে ময়লা পরিষ্কার করেন এবং তারপর ছবি পোষ্ট করেন। একটা কথা জানতে ইচ্ছে করে, বিশ্ব চুরি দিবস বলে যদি কোন দিবস থাকতো তবে কি আপনারা আপনাদের চুরির কোন ছবি পোষ্ট করতেন। কিভাবে গরীব প্রতিবন্ধি, বৃ্দ্ধ, বিধবার টাকার বিনিময়ে আপনাদের অট্টালিকা গড়েছেন সেই ছবি কি পোষ্ট করতেন। আমরা জানি আপনাদের সেই সাহস নেই কারণ চুরি করার সাহস আপনাদের থাকলেও চুরির কথা স্বীকার করার সাহস আপনাদের কোন কালে ছিল না আর ভবিষ্যতে ও থাকবে না। নিজের পকেট থেকে নাই বা করলেন অন্তত দাতা সংস্থাগুলোর টাকা গুলোর সঠিক ব্যবহার করেন দেখবেন দেশে আর ময়লা থাকবে না। অন্যায়কে অন্তরে লালন করে ন্যয় এর কথা আপনাদের মানায় না।