ক্যাটেগরিঃ স্যাটায়ার

 

উপরের যে ছবিটি দেখছেন, এরা সবাই আগামী দিন মন্ত্রী প্রতিযোগীতার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। যে কোন দিন রাজা আদেশ দিবেন- তোমরা সবাই মল্ল যুদ্ধে অবতীর্ণ হও। তোমাদের মধ্যে যে প্রতিযোগীতায় প্রথম-দ্বিতীয় হবে, আমি তাকে মন্ত্রী বানাবো। তাইতো এই স্টেজ রিহার্সেল। মন্ত্রী হওয়ার জন্য রাজনীতিতে কতোটুকু নিবেদিত, জনগণের কাছে কতোটা দায়বদ্ধ, কতোটা দেশ প্রেমিক, শিক্ষা ও মেধায় উত্তীর্ণ কিনা, রাস্ট্রের প্রয়োজনে নিজের বিচার-বুদ্ধি কাজে লাগাবার যথেস্ট ক্ষমতা আছে কি না, তার পরিবর্তে অন্যান্য যোগ্যতাকে বিবেচনা করা হবে “মন্ত্রীত্তের ফ্যাক্টর” হিসেবে। এরমধ্যে আরেকটি যোগ্যতা বলা হয় নি, তাহলো রাষ্ট্রীয় সম্পদ চুরি, কিংবা ডাকাতিতে কতোটা পারদর্শী!

হবুচন্দ্র রাজার গবুচন্দ্র মন্ত্রী
একবার হবুচন্দ্র রাজা মন্ত্রীত্তের প্রতিযোগিতা আহবান করলেন। রাজ্যের প্রতিরক্ষা মন্ত্রীর পদটি শূন্য। প্রতিরক্ষা মন্ত্রী হতে আগ্রহী প্রতিযোগীকে এক পায়ের উপর দাড়াতে হবে। প্রতিযোগিতায় প্রথম হবে যে, সেই হবে মন্ত্রী। সকাল থেকে প্রতিযোগিতা শুরু হলো। একে একে বাঘা বাঘা লোকেরা প্রতিযোগিতা থেকে বাদ পড়ে গেলেন। কিন্তু একটি লোক একাকী দাঁড়িয়ে রইলো সূর্য ডোবার আগ পর্যন্ত। হবুচন্দ্র রাজা সহ তার উপদেস্টা পরিষদের সবাই বিস্মিত। একে-একে সবাই লোকটির কাছে গেলেন। ভাল করে দেখলেন- লোকটি জন্মসূত্রে এক পায়ের অধিকারী। আর কি করা। প্রতিশ্রুতি রক্ষা করতে অবশেষে এক পায়ের লোকটিই হলো রাজ্যের প্রধান সেনাপতি!

নিউইয়র্ক, ২০ অক্টোবর, ২০১১