প্রফেসর ইউনূস কি প্রতিহিংসার শিকার?

এই লোকটিকে আমি কোনদিন সামনাসামনি দেখিনি। গ্রামীন ব্যাঙ্ক তখনো মহীরূহ নয়। অধ্যাপক ইউনুসের বিভিন্ন পুরষ্কার পাওয়ার কথা পত্রিকায় পড়ি। লাল পতাকার দলগুলোকে সমর্থনের সুবাদে প্রফেসর ইউনুসের গ্রামীন ব্যাঙ্ক সম্পর্কে নেতিবাচক প্রচারণায় আড়ষ্ট। বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময় অনেকের মধ্যে এমন অভিযোগ বদ্ধমূল ছিল যে, প্রফেসর ইউনুসের কারনেই লাল বিপ্লব পাখা মেলতে পারছে না। তৃতীয় বিশ্বে বিপ্লব ঠেকানোর… Read more »

ড. মিজান থেকে ড. মাহফুজ

বাংলাদেশের প্রিন্টিং এবং ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ায় দুই স্বঘোষিত ডক্টরেট ডিগ্রীধারীর অবদান সম্ভবত স্বর্ণাক্ষরে লেখা হয়ে থাকবে। দু’জনেরই নামের আদ্যাক্ষর ‘ম’ এবং ব্যবসার ফিকিরে দু’জনেই ‘ম’ অর্থাৎ (বঙ্গবন্ধু) মুজিবের অনুসারী। বাংলাদেশের নিবেদিত সাংবাদিকতাকে যে কয়জন ব্যক্তিগত সার্থসিদ্ধি এবং ব্যবসার কফিনে মুড়িয়ে জলজ্যান্ত কবর দিয়েছেন, এই দুই ডক্টরেট তাদের অন্যতম। প্রথম গুরু ড. মিজানের সঙ্গে আমার সাক্ষাত ঘটেছিল… Read more »

ক্যাটাগরীঃ গণমাধ্যম ২৮

ভাল থাকার চেষ্টা

আমার নিজের একটা দেহ আছে, আছে মন নামের অদৃশ্য কিছু। দেহের ওপর নিয়ন্ত্রণ রাখি চেষ্টা করে। কিন্তু মনের ওপর নিয়ন্ত্রণ রাখা বেজায় কঠিন। দেহ আর মনের মিলন হলেই তবে ভাল থাকা। দেহটা কথা শোনে, যখন চেস্টা করি। কিন্তু মনটা কথা শোনে না। কখনো মনের ঘোড়া দৌড়ায় তার ইচ্ছে মতোই। দেহ নিয়ে যখন কথা উঠলোই, ইচ্ছে… Read more »

ক্যাটাগরীঃ স্বাস্থ্য

মানুষকে আগে বাঁচতে দিন!

মানুষকে স্বপ্ন দেখতে হয়। এবং সমাজে শান্তি চাইলে সবাইকে স্বপ্ন দেখাতে হয়। এই স্বপ্ন দেখানোর কাজটা করেন সমাজের সুবিধাভোগী অংশটি। যে মানুষের কোন স্বপ্ন নেই, তার জীবনের কোন মোহ নেই। জীবন তার কাছে ভারবাহী পশুর মতো। যে কোন সময় কাত হয়ে কিংবা হাঁটু গেড়ে বসে যেতে পারলেই সে বাঁচে। বাংলাদেশে এক শ্রেণির মানুষের জীবন এখন… Read more »

হুমায়ূন আহমেদকে ‘নোবেল’ নয় কেন?

কথাটা বেফাঁস নয় মোটেও। বাঙলা সাহিত্যে যে কয়জন জীবিতকালে পাঠক মন জয় করেছেন, হুমায়ূন আহমেদ তাঁদের অন্যতম। এ যাবত উভয় বাংলায় বেস্ট সেলার হুমায়ূন। বাঙলা ভাষায় সাহিত্য রচনা করে লক্ষ মানুষের জীবন বোধ জাগিয়ে দিয়েছেন হুমায়ূন। তার লেখা নাটক মানেই জীবনের কথা, মানুষের মনুষ্যত্ব জাগিয়ে তোলার প্রয়াস। বাঙলা সাহিত্যে হাতে গোণা কয়েক জন এই গুণের… Read more »

মনটাকে বলি তুই বড় হ’

একটি বড় মাপের অপবাদ বাঙালীর ঘাড়ে। সেটি হলো, নিজের ব্যর্থতা ঢাকতে সব সময় আমরা ওপরের সংশ্লিষ্টতা খুঁজি। একই ধরনের অভিমত ব্যক্ত করেছেন রবীন্দ্রনাথ তার লেখায় বিভিন্ন সময়ে। নীরদ সি চৌধুরী নামের এক ব্রিটিশ হিতৈষী ভারতীয় বাঙালীও আমাদের এ চারিত্রিক দুর্বলতার কথা বলেছেন অকুন্ঠ চিত্তে। আরেকটু কাছ থেকে বাঙালী মুসলমান সম্পর্কে প্রায় একই কথা বলেছেন আমাদের… Read more »

সাতরঙা বেলুন

মানুষের মনকে আনন্দ দিতে কত না উৎসব আয়োজন! আমার দীর্ঘ দিনের সাধ ছিল বেলুন উৎসবে যোগ দেয়ার। নানা কারনে হয়ে ওঠেনি। আজ সে আধ পূর্ণ হয়েছে। হাওয়ায় মানুষের রঙের ফানুশ ওড়ার খেলা দেখে দেখে ভুলে গিয়েছি সংসারের সব জ্বালা যন্ত্রণা! ভুলে গেছি পদ্মা সেতুর ব্যথাভরা কাহিনী, সাগর-রুনিকে নিয়ে উপরি তলার মানুষদের (যেমন মাহফুজুর রহমানের) মিথ্যার… Read more »

ক্যাটাগরীঃ প্রবাস কথন

পদ্মা সেতুঃ আমরাও পারি

মানুষ পারে না, পৃথিবীতে এমন কাজ কি আছে? না, নেই। শুধু প্রয়োজন সদিচ্ছা, আর কর্ম প্রচেষ্টা। স্বপ্ন মানুষকে এগিয়ে নিয়ে যায়। আর স্বপ্নের বাস্তবায়ন ঘটায় মানুষই। মানুষের জীবনে কখনো সঙ্কট আসে। সে সঙ্কটের উত্তরণও ঘটায় মানুষই। এর পেছনে মানুষের বাস্তববাদী বুদ্ধিবৃত্তিক প্রয়াসও থাকে। থাকে বজ্র কঠিন সঙ্কল্প! বিশ্বব্যাংকের হাত গুটিয়ে নেয়ার কারনে আমরা কি বসে… Read more »

শাক দিয়ে মাছ ঢাকা যায়

শাক দিয়ে মাছ ঢাকা যায়, কিন্তু রাজনীতি দিয়ে দূর্নীতি ঢাকা যায় না। দূর্নীতির রোগটি দগদগে। যেভাবেই ঢাকা যাক, কাপড় ভেদ করে ক্ষত বেড়িয়ে আসে। দুর্ভাগ্য, ক্ষমতার মদ মত্ততায় মানুষ তা আমলে নেয় না। যেমন আমলে নেয় না আকন্ঠ দূর্নীতিতে নিমজ্জিত কোন সরকারও। সরকারের দায়িত্বে আওয়ামী লীগ রাজনীতির তীর ছুঁড়ে বিরোধী দল বিএনপিকে ঘায়েল করতে করতে… Read more »

যারে দেখতে নারি…

বাংলায় একটা প্রবাদ আছে- যারে দেখতে নারি, তার চলন বাঁকা। সভ্য সমাজের কাছে মাহফুজুর রহমান বদনাম কুড়িয়েছেন অনেক আগে। যেদিন থেকে এটিএন বাংলা নামক চ্যানেলে নাসির বিড়ির বিরামহীন বিজ্ঞাপণের নর্তন-কূর্দণ শুরু করেছিলেন, সেদিন থেকেই ছিঃ ছিঃ পাচ্ছিলেন। এরপর শুরু করলেন বস্তাপচা বাংলা সিনেমার বিরামহীন প্রচারণা। একটি টিভি চ্যানেলের জন্মের শুরুতেই তিনি এর বিকৃত অবয়ব দান… Read more »

ক্যাটাগরীঃ আইন-শৃংখলা ১৪