ক্যাটেগরিঃ সেলুলয়েড

শুধু একজন বিনোদন সাংবাদিক কিংবা লেখক নয়। তিনি এ প্রজন্মের সকলের কাছে সমান সমাদৃত স্বনামধন্য গীতিকার, নাট্যকার, উপন্যাসিক ও গল্প লেখক। লেখালিখির প্রতিটি পরতে পরতে যার সচ্ছন্দ যাতায়াত। বলছি, এপার বাংলা ওপার বাংলা দু’ই বাংলারই বাংলা সাহিত্য ও সংস্কৃতির নন্দিত লেখক অনুরূপ আইচ-এর কথা।

২৫ ফেব্রুয়ারি লেখার জাদুকর অনুরূপ আইচ চট্টগ্রাম জেলায় জন্মগ্রহণ করেন। বাবার নাম টিবি আইচ মায়ের নাম নেলী আইচ। দু’ই ভাই এর মধ্যে তিনি ছোট। স্ত্রীকে নিয়ে ঢাকায় তার পারিবারিক আবহ।

অনুরূপ আইচ লেখালিখির শুরু করেন ক্লাস টু-তে পড়ার সময় থেকে। বাবা-মায়ের সাথে তিনি গিয়েছিলেন কলকাতায় বেড়াতে। বাবা টিবি আইচ তাকে শান্তিনিকেতনে নিয়ে যান এবং রবীন্দ্রনাথের ‘গল্পগুচ্ছ’ বইটি কিনে দেন। তখন থেকেই তার কচি মনে রবীন্দ্রনাথ পাকাপোক্তভাবেই আসন গড়েছিলেন। পরীক্ষার খাতায় লিখতে বসে তিনি নিজের স্বরচিত কবিতাই লিখে দিয়ে আসতেন। স্কুলের বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় কবিতা লিখতেন, এ ছাড়া দেয়াল পত্রিকা, বিভিন্ন ম্যাগাজিন তার লেখা প্রকাশিত হতো।

সাংবাদিক হিসেবে নিজেকে তিনি আত্মপ্রকাশ করেন ১৯৯৫ সালে চট্টগ্রামের দৈনিক আজাদী পত্রিকার মাধ্যমে। এরপর তিনি ঢাকায় চলে আসেন এবং ১৯৯৬ সালে দৈনিক ভোরের কাগজ পত্রিকায় যোগ দেন। এরপর তিনি দৈনিক যুগান্তর পত্রিকায় বিনোদন প্রধান ও নিউজজি২৪ এ গুরু দায়িত্ব পালন করেন। বর্তমানে তিনি আইচ নিউজ এর সম্পাদক হিসেবে কর্মরত আছেন।

২০০০ সাল থেকে তিনি গান লেখা শুরু করলেও ২০০১ সালে ব্যান্ড শিল্পী বিপ্লবের ‘আদর্শলিপি’ অ্যালবামের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে গীতিকার হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেন। তারই ধারাবাহিকতায় এ পর্যন্ত অনুরূপ আইচ রচিত বহু গান প্রকাশিত হয়েছে। দেশের নামকরা শিল্পীরা তার লেখা গান গেয়ে হয়েছেন আলোচিত। নতুনরা পেয়েছেন পরিচিতি।

তার লেখা জনপ্রিয় গানগুলো হচ্ছে- ব্যান্ড শিল্পী হাসানের “অযুত লক্ষ নিযুত কোটি”, বেবী নাজনীনের “সকাল বেলার কোকিল”, আইয়ুব বাচ্চুর “দিল”, জেমসের “লুটোপুটি”, মমতাজের “পাংখা”, শহীদ ও শুভমিতার গান “এক জীবনে এতো প্রেম পাবো কোথায়”, আরফিন রুমি ও পড়শি’র ” তোমারই পরশ”, “খুঁজে খুঁজে”, “একটু একটু”, ইমরান ও পূজা’র গাওয়া “দূরে দূরে”, আরফিন রুমি ও খেয়া’র “বলো না কোথায় তুমি”, আরফিন রুমি ও পূজা’র “তুমি আমার জীবনে সবকিছু”, জনি খন্দকার ও মোহনা’র “তুমি আমার”, খন্দকার বাপ্পী’র “চার ছক্কা”, “নাচ পাগলা”, ‘ভাষা তোমার জন্যে’,  সাংবাদিক ও অভিনেতা একে আজাদ সানি’র ‘দুই জীবন’ ইত্যাদি।

২০০৪ এর দিকে নাটক লেখার কাজ শুরু করেন এবং ২০০৫ সালে প্রথমবারের মতো একক নাটক লিখেন তিনি। এখন পর্যন্ত বেশ কিছু জনপ্রিয় নাটকও রচনা করেছেন তিনি। তার লেখা নাটকগুলো হচ্ছে- সহেনা যাতনা, দ্য সুজ স্টোরি, পাংখা, কেউ এসেছিলো, অনু কিংবা পরমাণু, ক্রাইম রিপোর্টার, গুম, রিটার্ন ব্যাক, প্রেম নয় ভালোবাসা, একটা লাভ স্টোরি, কথা, প্রতিপক্ষ ইত্যাদি।

বইয়ের পাঠকদের জন্যও অনুরূপ আইচ বেশ সাবলীল। অনুরূপ আইচ’র লেখা ভিন্ন ধর্মী উপন্যাসের মধ্যে- বেশ সমাদৃত ও উল্লেখ যোগ্য উপন্যাস গুলো- সমকালীন গল্প নিয়ে বাংলা-প্রকাশ প্রকাশনীর প্রকাশনায় “অ্যালকোহল”, সমকালীন উপন্যাস নিয়ে প্রিয়মুখ প্রকাশনীর প্রকাশনায় “প্রেমহীনা”, সমকালীন গল্প নিয়ে প্রিয়মুখ প্রকাশনীর প্রকাশনায় “প্রেমলীলা”, রোমান্টিক গল্প নিয়ে ভাষাচিত্র প্রকাশনীর প্রকাশনায় “প্রেম নয় ভালোবাসা”, সমকালীন গল্প নিয়ে রচিত কালো প্রকাশনীর প্রকাশনায় “প্রেমময়”, সমকালীন গল্প নিয়ে রচিত সব্যসাচী প্রকাশনীর প্রকাশনায় “আমি তোমায় ভালোবাসি”। এছাড়াও তার জনপ্রিয় গানগুলো নিয়ে প্রকাশিত হয়েছে ‘অনুরূপ আইচের গান’। বইটিতে মোট ৫৬টি গান রয়েছে।

সেরা গান রচয়িতা হিসেবে অনুরূপ আইচ ইউরো সিজে এফ বি এ্যাওয়ার্ড ২০১৪ সম্মাননা ওয়ার্ড পান। এছাড়া তিনি কাজী নজরুল ইসলাম পদক, ডি সি আর ইউ এ্যাওয়ার্ড, মিজাব এ্যাওয়ার্ড, সিজাব এ্যাওয়ার্ডসহ অনেক পুরস্কার পেয়েছেন লেখক হিসেবে।

আজ সকলের প্রিয় অনুরুপ আইচ-এর শুভ জন্মদিন। কোন রাজার সিংহাসন থেকে নয়, নয় হিমালয়ের পাদদেশ থেকে । ৭ সমুদ্র ১৩ নদীর ওপাড় থেকে নয়, অন্তরের অন্তঃস্থল থেকে জানাই শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। শুভ জন্মদিন ।