ক্যাটেগরিঃ দিনলিপি

“ও গো বৃষ্টি আমার চোখের পাতা ছুঁয়োনা…
আমার এতো সাধের কান্নার দাগ ধুয়োনা,
সে যেনো এসে দেখে….
পথ চেয়ে তার, কেমন করে কেঁদেছি।”

আপাতদৃষ্টিতে আবেগে পরিপূর্ণ “সেনসেটিভ” যাকে বলে তা নই। স্বীকার করতেই হয়। কিন্তু তারপরও হঠাৎ বৃষ্টি, হঠাৎ ঝড়, বড় বেসামাল করে দেয়। “হাইলি ইমপরটেন্ট” প্রাইররিটি সম্পন্ন কাজ ছেড়ে উঠে যেতে বিন্দুমাত্র দেরি হয়না। যেমন এখন।

হঠাৎ বৃষ্টি, থামিয়ে দিল আমাকে। হয়তবা আমার মতন আরো অনেকেই থমকে গিয়েছে, কিছুক্ষণের জন্য হারিয়ে গিয়েছে কঠিন বাস্তব, কন্টকময় পৃথিবীর বন্ধন থেকে, কিছুক্ষণের জন্য ভেবেছে……. জীবন কয়দিনের, আজ আছি তো কাল নেই। এইযে লিখছি, হয়তবা এর পর কিছু মুহুর্তের মধ্যেই আমি “জনিকা মাহমুদ”……….. “মরহুমা জনিকা মাহমুদ” হয়ে যেতে পারি।

এবং ইহা সত্য, অতীব রুঢ় সত্য। আর কিছুই থেমে থাকবেনা। আমার ঘড়ির কাঁটা থেমে গেলেও থামবেনা, তোমার, আপনার, আপনাদের। আর এটাই কিন্তু আমাদের পৃথিবীর প্রকৃত সত্য, প্রকৃত বাস্তব। যা মনে প্রাণে ভুলে থেকে মরিচীকার পেছনে ছুটি।

একজন অতীব কাছের মানুষকে ইঙ্গিত করে বলছি……যখন দুমিনিটেরই ভরসা নেই, তখন ইগো নিয়ে ঝামেলা করে কি লাভ!!!!

এই আবোল-তাবোল বকর বকর লিখবার হেতু এই যে,

হারপাল ইহা….(সবসময় এখানে)
জি ভার জিও (মন ভরে বাঁচো)
যো হে সামা…(এখন যে সময়)
কাল হো না হো…(কাল থাকবে কি থাকবেনা………….)