ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

আওয়ামী লিগে যোগ দেয়াটা কিন্তু এখন খুব প্রয়োজনীয়….না না না… বলা চলে লোভনীয় প্রস্তাব। কেননা দেখেন না, স্বয়ং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দলীয় নেতা কর্মীদের হরতালে বিশৃঙ্খলা রোধ করার জন্য জনপথে প্রহরীর ন্যায় ব্যাকআপ দিতে বলেছেন। কেননা তার পালিত নিরাপত্তা কর্মীরা অচল…তারা তো হরতাল চলাকালীন বিশৃঙ্খলা সৃষ্টিকারীদের রোধ করাতে প্রশিক্ষিত নয়। তারা পারে কষ্ট করে উদ্ধারকৃত প্রমাণগুলো কাঁঠাল গাছে ঝুলিয়ে রাখতে। “মাথার উপর কাঁঠাল ভেঙে খাবার” এর এক উৎকৃষ্ট উদাহরন!!

যাই হোক…যোগ দিবো কি আনন্দে?? আরে ভাই এ তো লাইসেন্স পেয়ে যাওয়া! কিছু পুলাপান আছে যাদের উপর আমার বেদম রাগ..গিয়ে ঠাস ঠাস গালে দুই তিনটা বসিয়ে দাঁত কেলিয়ে বলব…”আওয়ামী লিগ করি…ব্যাটা প্রহরী আমি..সালাম ঠোক আর মাইর খা”..

কোন সুস্থ্য (বাদ দিলাম)..শিক্ষিত মন্ত্রীর এমন উক্তিকে পজিটিভলি নিতে পারছিনা। হয়ত বা জ্ঞানের অভাবেই আমার এমন দশা! কিন্তু দলে যোগ দিলে যে..লাভই লাভ এই লোভ আবার বড় বেসামাল করে দিচ্ছে আমাকে।

আরেক ভদ্রলোকের, মির্জা ফকরূল ইসলাম এর বিনীত কষ্ট প্রকাশ দেখে একসময় বুঝতে পারলাম মুখে মাছি ঢুকেছে আমার। (এই মানে হা হয়ে গেলাম আর কি. ) “জনগণের দুর্ভোগ হয় আমরা বুঝি কিন্তু বৃহৎত্তর স্বার্থে এই হরতাল কার্যক্রম আমাদের চালিয়ে যেতে হবে”। তা জনাব এই হরতাল করে কি আন্দোলন করছেন! মানে বলতে চাইছি…কি উপকারটা হবে?? আমার গাড়ি পুড়বে..যে গাড়ি হয়ত আপনাদের মত কালারেবল অর্থ দ্বারা কেনা নয়, বহুত কষ্টের উপার্জিত অর্থের দ্বারা কেনা, আমার ভাই আগুনে জ্বলে কাবাবের মত হবে, আমার অসুস্থ বাবা হাসপাতালে যেতে না পেরে পথেই ইন্তেকাল, আমার দিনমজুর ভাই পেটে বাধবে একটা পাথর..ঘরের কোণে বসে বউ-বাচ্চা নিয়ে আনন্দ করবে!! সাধু… সাধু।

কসম করে বলছি… এই আমি আপনার পাশে গিয়ে দাঁড়াব যদি দেখতাম আপনাদের দলের গুম হয়ে যাওয়া নেতার জন্যে কষ্টে রাজপথে আপনি বা আপনার নেত্রী অনশনে বসেছেন। শুধু আমি কেন…আমার মতন আরো অনেক হাবলা গাবলারা আপনার পাশে দাঁড়াবে। বসেন…অনশনে বসেন। বিশ্বাস করব…যে নাহ..এই আন্দোলন আমাদের জন্যে, দেশীয় স্বার্থে, জনগণের স্বার্থে।

এমনিতেই ঘুমের সমস্যাতে ভুগি তার উপর যখন এতো তরতাজা জলন্ত আগুনের ন্যায় বক্তব্য শুনি…তখন মনে হয় যে……থাক্..ভাই-বোনেরা বুঝে নিন।

রাজার দোষে….রাজ্য ডোবে না ভোগে এমন একটা কথা আছে নাহ?

ভাবছি…ভুল! আমাদের দোষেই আমরা ভুগি।