ক্যাটেগরিঃ নাগরিক সমস্যা

 

“এমন দেশটি কোথাও খুজেঁ পাবে নাকো তুমি”

বিদ্যুৎ নেই এই আসে এই যায়
গ্যাসের চুলো জ্বলেই না হায় হায়!
০১. কবিতাটা কিছুদিন হয় লিখেছি। এটা আমাদের দেশের একটা পুরাতন বিষয়। আর ঢাকা শহরের জন্য নিত্য দিনের ব্যাপার। এমনকি তুচ্ছ বিষয়। এর চেয়ে ঢের ঢের বেশি সমস্যা রয়েছে যে! যাইহোক আমার বিষয়টা সম্পূর্ণ ভিন্ন। আমি যা বলব- হয়তো এটা আমেরিকা-ইউরোপের কাহীনি। আমেরিকা ইউরোপের ব্যাপার-স্যাপার। কিন্তু না আমি বরং আমার দেশের কথাই বলছি।

০২. ঈদুল আযহা গেল। এলো হেমন্ত। শীতের আমেজ। অলরেডি শীত। গ্রামে পুরোপুরি শীত। ঢাকা শহরে কিছুটা। শেষরাতে কিছু একটা গায়ে জড়াতে হয়। যতদূর মনে পড়ে গত ৫ তারিখ। আমাদের একে একে বাড়ি যাওয়ার ডেট। কেউ গেল। কেউ গেল না। আমি গেলাম। ঈদের ভিন্ন অভিজ্ঞতা। তিক্ত বললেও ভুল হবে না।

০৩. আমাদের দেশের সমস্যা নতুন নয়। নয় সমাধান যোগ্য। সমাধান ব্যাপারটা ভাবতেই কষ্ট। অব্যক্ত এক কষ্ট। তারপরও আমরা আমাদের দেশ নিয়ে কত স্বপ্ন দেখি। রাত জেগে কবিতা লেখি। মুখে দেশপ্রেমের বুলি আওড়াই। সত্যিকার দেশপ্রেম নাইবা থাকল। তবে কথা থেকে যায়।

০৪. গত ৫ তারিখ। আজ ১৭ তারিখ। প্রায় ২ সপ্তাহ। বিদ্রুৎ যাচ্ছে না। এক মিনেটের জন্যও না। মানে লোটশেডিং হচ্ছে না। বিষয়টা ভাবতে পারেন। অবাক হতে হয়। আমাদের দেশে কতই না সমস্যা। অথচ এরমধ্যে একটু আধটু সুখকর খবর পেলে মনটা নেচে ওঠে। নেচে উঠতে বাধ্য! কী কারণে লেডশেডিং হয়নি জানি না। তবে হয়নি এটা কিন্তু সত্য। ধ্রূব সত্য। আহা কতই না আনন্দ। আমাদের মনের আকাশে আর মেঘ নেই। আমরা সুখের রাজ্যে বাস করছি।

০৫. আমরা একটা সুখ স্মৃতি আবিষ্কার করলাম। অন্তত এক চিলতে সুখের। মন্দ নয় কিন্তু। তবে অনেকে অনেক ব্যাখ্যা দিয়েছেন। আমি যাদের কাছেই বললাম। ব্যাপারটা কেউ পজেটিভ বলেনি। আমার মত ভিন্ন। সম্পূর্ণ ভিন্ন। যে কারণে ভিন্ন তা বলব না। বলব এতটুকু–

০৬. আমরা একটা নতুন স্বপ্ন দেখতে পারি। জীবন রাঙাতে পারি স্বপ্নে বিভোর হয়ে। বিদ্যুতের চাহিদানুযায়ী আমাদের যোগান নেই। সত্য। চরম সত্য। তবে একটু সচেতন হলে চাহিদা মেটানো সম্ভব। সম্ভব আমাদের স্বপ্নের নতুন বীচ বপন করা।

০৭. ক. আমরা অপ্রয়োজনে আমাদের ফ্যান বন্ধ রাখি।
খ. অপ্রয়োজনে বাতিটা একটু নিভিয়ে রাখি।
গ. বাথরুমে কেউ নেই অথচ বাতিটা জ্বলছে এমন না হোক।
ঘ. আবার এমন না হোক অফিসে যাচ্ছি বাসার ফ্যান চলছে অথচ স্ত্রীও বাসায় নেই।
ঙ. পাকঘরে কিছু হচ্ছে না অথচ বাতিটা না জ্বলুক।
চ. টেলিভিশনের রুমে কেউ নেই অথচ ফুল সাউন্ডে আওয়াজ দিচ্ছে না হলেই তো।
ছ. কাজ করছেন না পিসিটা বন্ধ রাখি।
জ. বৈদ্যুতিক হিটার ব্যাবহার থেকে বিরত থাকি।
ঝ. ইস্ত্রীটা একমাত্র প্রয়োজনেই ব্যবহার করি। (অনেকে এটাকে ভুলে লাইনে রেখে দেন)
ঞ. একটু সচেতন হই। হই দেশপ্রেমী।

০৮. আমাদের মাকে আমরা কেউই কষ্ট দিতে চাই না। চাই না মা সামান্য কষ্ট পাক। আমাদের দেশকে আমরা মায়ের মতই ভালোবাসি। তবেই না মনের অজান্তেই গুন গুন করে গেয়ে উঠবো –
“ এমন দেশটি কোথাও খুজেঁ পাবে নাকো তুমি
সকল দেশের রাণী সে যে আসার জন্মভূমি”!