ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

 


গতকাল সন্ধ্যায় “মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য, বর্ষীয়ান নেতা আব্দুর রাজ্জাক আর নেই” শোক সংবাদটি রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী ও বিরোধীদলীয় নেত্রীর শোকসহ কয়েকটি মিডিয়ায় প্রচার হবার পর, শোকভারাক্রান্ত মনে ফেসবুকে শেয়ার করলাম-

মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক ও আওয়ামী লীগের প্রবীণ নেতা আব্দুর রাজ্জাক সাহেবের স্মৃতির প্রতি রইলো বিনম্র শ্রদ্ধা। আমাদের মাথা নত হয়ে আসে, মুক্তিযুদ্ধে তার অবদানের কৃতজ্ঞতায়….আমাদের মাথা নত হয়ে থাকবে, তাকে মূল্যায়ন না করার ব্যর্থতায়!!

কিন্তু আমার নত মাথা মাটির সাথে মিশে গেল যখন ঘন্টা খানেক পড়ে জানলাম- হাসপাতালের চিকিৎসকরা তখনও আবদুর রাজ্জাককে মৃত ঘোষণা করেননি! একজন চিকিৎসক বলেছেন, ‘হি ইজ স্টিল অ্যালাইভ
আমি ভাবছিলাম, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, প্রবীন এ রাজনীতিবিদের জীবনের শেষ সময়ে দেশের কাছ থেকে কি চমৎকার প্রাপ্তি!!!!

হুজুকে বাঙ্গালির হুজুকপনায় আক্রান্ত মিডিয়া হয়তো অতি উৎসাহি হয়ে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী ও বিরোধীদলীয় নেত্রীর নাম ব্যবহার করতে পারেন!!! কিম্বা আমাদের রাজনীতিবিদেরাও হয়তো কানের শোকে চিলের পেছনে দৌড়াতে পারেন!!!

প্রশ্ন হলো, আমাদের রাজনীতিবিদের বিভ্রান্ত করা কিম্বা তাদের নাম ব্যবহার করা কি এতই সহজ!! তারা এতটাই সস্তা, এতটাই দায়িক্তহীন???

তবে বর্তমান তোষামোদী রাজনীতির যুগে অচল(!)রাজনীতিবিদ আবদুর রাজ্জাক এতটা সস্তা ও দায়িক্তহীন ছিলেন না। আমৃত্যু দেশের জন্য কাজ করে যাওয়া এ যোদ্ধা, শেষ নিঃশ্বাস ও দেশের জন্য দিয়ে গেলেন! তিনি মরে প্রমান করলেন তিনি মরেন নাই! তিনি মরে এ দেশের হুজুকে মিডিয়া ও রাজনীতিবিদদের লজ্জার হাত থেকে বাঁচিয়ে গেলেন, দিয়ে গেলেন দায়িক্তশীল হবার শিক্ষা।

##ছবি-বাসন্ত বিষুব-এর ব্লগ থেকে নেয়া।